রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, রেলের টিকিটের কালোবাজারি ঠেকাতে ‘টিকিট যার, ভ্রমণ তার’ বাস্তবায়নের চেষ্টা করা হচ্ছে। আমরা প্রয়োজনে শতভাগ রেলের টিকিট অনলাইনে বিক্রির ব্যবস্থা করবো। তাহলে কালোবাজারির আর সুযোগ থাকবে না।

শনিবার দুপুরে পঞ্চগড়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশনে নবনির্মিত প্রধান ফটক ও সংযোগ সড়ক এবং পঞ্চগড়-সান্তাহার রুটে ‘দেলনচাঁপা এক্সপ্রেস’ আন্তঃনগর ট্রেন এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘একটি ভারসাম্যমূলক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে সরকার। রেলের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। চলতি বাজেটেও ১৮ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ রেলপথগুলো ডাবল লাইনে উন্নীত করার কাজ চলছে। পঞ্চগড় থেকে বাংলাবান্ধা হয়ে জলপাইগুড়ি স্টেশন পর্যন্ত রেল যোগাযোগ স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ভারতের পাশাপাশি নেপাল ও ভুটানের রেলযোগাযোগ স্থাপিত হবে।’

পরে তিনি পতাকা উড়িয়ে পঞ্চগড়-সান্তাহার রুটে ‘দেলনচাঁপা এক্সপ্রেস’ এবং ফিতা কেটে ও ফলক উম্মোচন করে নবনির্মিত প্রধান ফটক ও সংযোগ সড়ক উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ রেলওয়ে রাজশাহী বিভাগের মহাব্যবস্থাপক (পশ্চিম) অসীম কুমার তালুকদারের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম, জেলা পরিষদ প্রশাসক আনোয়ার সাদাত সম্রাট, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাকিবুল হাসান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন। এতে রেল বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ উপস্তিত ছিলেন।