যত্রতত্র গড়ে উঠা অননুমোদিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। 

তিনি বলেছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অন্য সব প্রতিষ্ঠানের মতো নয়। এ জন্য চাইলেই হুট করে বন্ধ করা যায় না। বন্ধের জন্য একটি রূপরেখা তৈরির পরিকল্পনা চলছে।

রোববার সচিবালয়ে পরীক্ষা-সংক্রান্ত জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, অননুমোদিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদেরও আমরা সমানভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি। এসব প্রতিষ্ঠানের সিংহভাগই প্রাথমিক পর্যায়ের। এ ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রাখা হবে না। এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অন্তর্ভুক্ত করতে আমরা প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করব। আর নিম্ন মাধ্যমিক থেকে উচ্চ পর্যায়ের অননুমোদিত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পার্শ্ববর্তী অনুমোদিত প্রতিষ্ঠানে যুক্ত করতে পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

কিন্ডারগার্টেনকে নীতিমালায় আনা প্রসঙ্গে দীপু মনি বলেন, নতুন শিক্ষা আইনে এসব বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। দেশীয় কারিকুলামে সহজে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যায় না। এ কারণে কেউ কেউ ইংরেজি কারিকুলাম বা অন্য উপায়ে এ ধরনের প্রতিষ্ঠান চালু করেন। শিক্ষা আইন চূড়ান্ত করা হয়েছে। ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে এটি মন্ত্রিপরিষদে পাঠানো হবে।

নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের কাজ শেষ করেছি, শিগগির তালিকা প্রকাশ করা হবে। 

এ বছর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা জুনে নেওয়া হলেও আগামী বছর এগিয়ে আনা হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।