‘অবৈধ’ আওয়ামী লীগ সরকারকে সরিয়ে জনগণের প্রতিনিধিত্বের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে গেলে ‍যুবদলকেই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয়তাবদী যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু।

তিনি বলেন, ‘এই অবৈধ সরকারকে সরিয়ে জনগণের প্রতিনিধিত্বের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। তাহলেই দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে, দেশমাতা খালেদা জিয়া মুক্তি পাবে, মানুষের ভোটাধিকার ফিরে আসবে। আর এর জন্য সরকার রাজপথের কঠিন আন্দোলন। যে আন্দোলনের নেতৃত্বে থাকবে, সামনে থাকবে যুবদল। এজন্য যুবদলের প্রত্যেকটি স্তরে ত্যাগী ও যোগ্যদের সমন্বয় ঘটাতে হবে। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে।’

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের উদ্যোগে মতিঝিল থানা যুবদল কর্মী সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

যুবদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোনায়েম মুন্না বলেন, এই নিশিরাতের আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতিটি নেতাকর্মী, মন্ত্রী-এমপি স্বজন-পরিজন-লুটপাট, টাকা পাচার, চাঁদাবাজী, সন্ত্রাস, দুর্নীতি অপকর্মের সঙ্গে যুক্ত। গত একশকে দেশ থেকে ১১ লক্ষ কোটি টাকার বেশি পাচার করে দিয়েছে। শুধু টাকা পাচার করা হয়নি। দেশের গণতন্ত্র, মানবাধিকার, ভোটাধিকার, মানুষের বেঁচে থাকার অধিকারকেও নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে। রাজনীতিকে কলুষিত করা হয়েছে। 

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে আন্দোলনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মুন্না বলেন, সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ও গণতন্ত্রের আপোষহীন নেত্রী খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দেয়া হয়েছে। এখন তিনি অসুস্থ। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো রকার। কিন্তু এই অনির্বাচিত সরকার সেই পথকেও রুদ্ধ করে রেখেছে। এই পথকে মুক্ত করতে রকার রাজপথের আন্দোলন।

ঢাকা মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক ওমর ফারুক মুন্নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক গোলাম মাওলা শাহীন, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকার, মহানগর ক্ষিণের সস্য সচিব খন্দকার এনামুল হক এনাম, যুগ্ম আহ্বায়ক ইকবাল হোসেন বাবলু প্রমুখ।