পাকিস্তান তেহেরিক-ই ইনসাফের (পিটিআই) নেতা ফায়াজ চোহান বলেছেন, ‘কিছু লোক’ সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে হত্যা করতে এক সন্ত্রাসীকে দায়িত্ব দিয়েছেন। 

শনিবার এই দাবি করেন তিনি। এর আগে গত এপ্রিলে বিরোধীরা অনাস্থা ভোটের মাধ্যমে ইমরান খানকে ক্ষমতা থেকে সরিয়েছিল। শনিবার এই খবর দিয়েছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিওটিভি। 

এক টুইটে পাকিস্তানের প্রাদেশিক এই সাবেক মন্ত্রী দাবি করেন, কিছু লোক ‘চোচি’ নামে আফগানিস্তানের এক সন্ত্রাসীকে পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খানকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছেন বলে আমি জানতে পেরেছি।

এর আগে জীবননাশের হুমকির গুজবের মধ্যে গতমাসে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরানকে তার বাড়ি ইসলামাবাদ এবং রাজনৈতিক সমাবেশ চলাকালে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা দেওয়ার নির্দেশ দেন। 

গত মাসে এক জনসভায় ইমরান খান দাবি করেন তার জীবননাশের হুমকি রয়েছে। এরপর তিনি তার সরকারের বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্রের’ পেছনে থাকা লোকদের একটি ভিডিও রেকর্ড করা হয়েছে এবং তার কিছু হলে সেই ভিডিও প্রকাশ করবেন বলে জানান। 

শিয়ালকোটে অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনি দাবি করেন, তার জীবননাশের জন্য ‘ষড়যন্ত্র’ হচ্ছে এবং আগে থেকেই বিষয়টি তিনি জানতেন। এরপর তিনি যথেষ্ট প্রমাণ পেয়ে বিষয়টি আরও নিশ্চিত হন। 

তাকে হত্যার প্লট সাজানোর অভিযোগ করে তিনি জানান, তিনি একটি ভিডিও রেকর্ড করেছেন এবং সেটি ‘নিরাপদ স্থানে’ সংরক্ষণ করেছেন। ওই সময় তিনি উল্লেখ করেন ভিডিওর পেছনে থাকা চরিত্রগুলোর প্রত্যেকেই তার সরকারকে সরানোর ‘ষড়যন্ত্রের’ পেছনে ছিল। এর আগে গত এপ্রিলে ক্ষমতাচ্যুতির আগে তার সরকারের তৎকালীন তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরীও দাবি করেছিলেন, দেশটির নিরাপত্তা সংস্থার এক প্রতিবেদনে ইমরান খানকে ‘হত্যার পরিকল্পনা’ করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছিল।