পঞ্চগড়ের বোদায় নেশার টাকা না পেয়ে বাবা-মাকে মারধর করায় আল মামুন নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় বোদা পৌরসভা এলাকার জামাদার পাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার সকালে মাদকাসক্ত ছেলের বিরুদ্ধে তার বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করেন।

গ্রেপ্তার আল মামুন ওই এলাকার রেজাউল করিমের ছেলে।  

মামলা সুত্রে জানা যায়, আল মামুন একজন মাদকাসক্ত। রেজাউল করিম, তার স্ত্রী মুনিয়ারা বেগম ও মামুন মিলে ছোট মুদির দোকান চালান। তবে প্রতিনিয়ত মাদকের জন্য দোকান থেকে টাকা নিয়ে যেতেন মামুন। সোমবার দোকানের পণ্য বিক্রির কিছু টাকা নিয়ে পালিয়ে যান মামুন। বিকেলে নেশা করে মামুন বাড়িতে ফিরে আসেন। এ সময় তার মা দোকানের টাকার কথা জিজ্ঞেস করতেই মামুন তার মাকে গালাগালি শুরু করেন। রাতে আবার নেশা করবেন বলে মায়ের কাছে টাকা দাবি করেন। এক পর্যায়ে মা মুনিয়ারাকে মাটিতে ফেলে কিল ঘুষি মারতে থাকেন ছেলে। এ সময় স্ত্রীর চিৎকারে রেজাউল ইসলাম ছুটে আসলে তাকেও মারধর করেন মামুন। তাদের মারামারি ও চিৎকারে পরে প্রতিবেশিরা ছুটে এসে দুজনকে উদ্ধার করেন এবং পুলিশকে খবর দেন।

বোদা থানার ওসি আবু সাইদ চৌধুরী বলেন,  খবর পেয়ে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় মামুনকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে তার বাবা এবং মাকে প্রচণ্ড মারধর করেছিল। পুলিশ তার বাবা মাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে রেজাউল করিম এবং তার স্ত্রী সুস্থ আছেন। গ্রেপ্তার মামুনকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।।