হত্যা মামলায় ১৫ বছর কারাভোগের পর আপিল বিভাগের রায়ে খালাস পেয়েছেন ফাঁসির দুই আসামি ইসমাঈল হোসেন বাবু ও সোনাদি। একই মামলায় আরেক ফাঁসির আসামি তরিকুল ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের তিন সদস্যের বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই রায় দেন। আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী হেলাল উদ্দিন মোল্লা এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ।

২০০৬ সালে ১০ অক্টোবর রাজশাহীর গোদাগাড়িতে মিলিয়ারা খাতুন ও তার কন্যা পারভীনকে হত্যা করা হয়। পরে এ ঘটনায় করা মামলায় ২০০৮ সালে ইসমাইল, সোনাদি ও তরিকুলকে মৃত্যুদণ্ড দেন রাজশাহীর বিচারিক আদালত। এরপর ওই রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিলের শুনানি নিয়ে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা বহাল রাখেন হাইকোর্ট। পরে হাইকোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধেও আপিল করেন আসামিরা। 

আসামিদের করা আপিলের শুনানি নিয়ে আজ রায় দেন আপিল বিভাগ। চূড়ান্ত রায়ে মৃত্যুদণ্ড থেকে দু'জনকে খালাস ও একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া রায়ে আসামিদের অবিলম্বে কনডেম সেল থেকে কারাগারের সাধারণ সেলে স্থানান্তর করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।