ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) চারুকলা অনুষদে দুই দিনব্যাপী ‘শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ জন্মশতবর্ষ- ২০২২’ উদযাপন শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে এর উদ্বোধন করেন চিত্রশিল্পী রফিকুন নবী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদ, অনুষদের প্রিন্টমেকিং বিভাগ এবং বিভাগ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন এর আয়োজন করেছে।

চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেনের সভাপতিত্বে ‘শিল্পগুরুর শিল্পসাধনা’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চিত্রশিল্পী রফিকুন নবী।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সৈয়দ আজিজুল হক, জন্মশতবর্ষ উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক শিল্পী অধ্যাপক রোকেয়া সুলতানা, সচিব শিল্পী অধ্যাপক মো. আনিসুজ্জামান, চারুকলা অনুষদ প্রিন্টমেকিং বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ আবুল বারক আলভী, সফিউদ্দীন শিল্পালয়ের কর্ণধার ও শিল্পীপুত্র আহমেদ নাজির, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির চারুকলা বিভাগের পরিচালক মিনি করিম প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রফিকুন নবী শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদের গভীর স্মৃতিচারণ করে বলেন, ১৯৫৯ সালে যখন ভর্তি হলাম তখন চাররুকলায় একটি ছোট দালান ছিল। এই দালানের ভেতরেই যে আমাদের গর্ব করার মতো শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন থেকে শুরু করে শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ, কামরুল হাসান থেকে শুরু করে আনোয়ারুল হকের মতো মানুষ ছিলেন এত কিছু জানতাম না। সফিউদ্দীন স্যারের সাথে ছবিটা জগতের পাশাপাশি সংগীত, সাহিত্যের জগত নিয়ে কথা হতো। তার সান্নিধ্যে এসে এসবের মধ্যে আমার অংশগ্রহণ করা, অন্তর্ভুক্ত হওয়ার যে অবস্থান, তাতে যদি চুল পরিমাণও আলোকিত হয়ে থাকি সেটা সফিউদ্দীন স্যারের জন্য। উনি যে এখন নেই, সেটা আমি বিশ্বাস করতে পারি না।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক নিসার হোসেন বলেন, সফিউদ্দীন স্যার খুব মিতব্যয়ী মানুষ ছিলেন। এর একটি রিফ্লেকশন তার ছবিগুলোতে ছিল। কোনো জায়গায় অহেতুত কোনো এলিমেন্ট নেই, কোথাও কোনো অতিরিক্ত রেখা নেই। তার জীবনেও কিন্তু তা-ই ছিল। কত অল্পের মধ্যে চলা যায় এবং আভিজাত্য রক্ষা করা যায় এটিই তার শিক্ষা। এভাবেই মানুষ উপরে ওঠে। উপরে ওঠাটা অর্থের বিষয় না, এটি মানসিকতা। সফিউদ্দীন স্যারের মতো মানুষকে অনুসরণ করে আমরা আমাদের মানসিকতার স্তরকে উপরে তুলব এটাই আমাদের কাম্য।

আলোচনা শেষে রফিকুন নবী চারুকলার জয়নুল গ্যালারিতে ‘পরম্পরায় ছাপচিত্র’ শীর্ষক শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদের উত্তরসূরি কয়েক প্রজন্মের শিল্পীদের ছাপচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন।

এসময় অতিথিরা সফিউদ্দীন আহমেদের স্মৃতিতে ছাপচিত্রের মাধ্যমে তৈরি একটি পোর্টফোলিও উদ্বোধন করেন।

এর আগে সকালে শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় চারুকলা শিল্পী রফিকুন নবী, অধ্যাপক নিসার হোসেন, চারুকলা অনুষদভুক্ত বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অ্যালামনাইরা উপস্থিত ছিলেন।