শনিবার উদ্বোধনের পর জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে পদ্মা সেতু। রোববার সকাল থেকেই পদ্মা সেতুতে শুরু হয়েছে সব ধরনের যান চলাচল। এদিন সকাল ৬টা থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত প্রথম ৮ ঘণ্টায় ১৫ হাজার ২০০টি গাড়ি চলাচল করেছে। এসব গাড়ি থেকে ৮২ লাখ ১৯ হাজার ৫০ টাকা টোল আদায় করা হয়েছে।

রোববার বিকেলে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবুল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, আট ঘণ্টায় দুই পাড়ে মোট ৮২ লাখ ১৯ হাজার ৫০ টাকা টোল আদায় হয়েছে। এসময় সেতুর জাজিরা প্রান্তে মোট ৩৫ লাখ ২৯ হাজার ৫০০ টাকা টোল আদায় হয়। মাওয়া প্রান্তে ৪৬ লাখ ৮৯ হাজার ৫৫০ টাকা টোল আদায় হয়। দুই প্রান্তে গাড়ি যাতায়াত করা ১৫ হাজার ২০০টি গাড়ি থেকে এই টোল আদায় করা হয়।

তিনি আরও বলেন, সকাল থেকেই আমরা প্রস্তুত ছিলাম। ৬টার আগেই আমরা যান চলাচলের জন্য কাজ শুরু করি। সকাল থেকে সেতুতে যেসব গাড়ি চলাচল করেছে তার মধ্যে মোটরসাইকেল বেশি ছিল।

আবুল হোসেন বলেন, সকাল থেকে যেসব গাড়ি সেতু দিয়ে চলাচল করেছে তার মধ্যে ৬১ শতাংশ মোটরসাইকেল। এসময় ৯ হাজার ২৭২টি মোটরসাইকেল টোল দিয়ে পদ্মা সেতু পার হয়েছে। সে তুলনায় বড় যানবাহন কিছুটা কম।

এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেন। এ দিন সেতুর দুই প্রান্তের ফলক উন্মোচন করেন তিনি। নির্ধারিত টোল পরিশোধ করে পদ্মা সেতুতে ওঠেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর রোববার ভোর ৬টা থেকে পদ্মা সেতু দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল শুরু হয়।