গ্যালাক্সি স্মার্টফোন পানিরোধী এমন ফিচার নিয়ে বিভ্রান্তিকর বিজ্ঞাপন প্রচারের অভিযোগে স্যামসাংকে ৯৬ লাখ ৫০ হাজার ডলার জরিমানা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার আদালত। ফ্ল্যাগশিপ গ্যালাক্সি নোট, গ্যালাক্সি এস এবং গ্যালাক্সি এ সিরিজের কয়েকটি স্মার্টফোন নিয়ে এমন বিভ্রান্তিকর বিজ্ঞাপন প্রচার করে স্যামসাং অস্ট্রেলিয়া। ডিভাইসের সক্ষমতা নিয়ে ভুয়া বিজ্ঞাপন প্রচারের অভিযোগ এনে ২০১৯ সালে স্যামসাংয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছিল 'অস্ট্রেলিয়ান কম্পিটিশন অ্যান্ড কনজিউমার কমিশন (এসিসিসি)'। অভিযুক্ত স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে রয়েছে গ্যালাক্সি এস৭, এস৭ এজ, গ্যালাক্সি এ৫ ( ২০১৭), গ্যালাক্সি এ৭ (২০১৭), গ্যালাক্সি এস৮ ও এস৮ প্লাস এবং গ্যালাক্সি নোট৮। স্যামসাংয়ের প্রচারিত বিজ্ঞাপনে বলা হয়, উল্লেখিত ফোনগুলো সুইমিংপুল এবং সমুদ্রের পানির নিচেও সেলফি তুলতে পারে।

পানির নিচে ব্যবহার করলেও এসব ফোনে পানি ঢুকবে না বলে ২০১৬ সালের মার্চ থেকে ২০১৮ সালের অক্টোবর পর্যন্ত প্রচারণা চালানো হয়। এসিসিসি জানিয়েছে, এ ধরনের বিজ্ঞাপনী প্রচারণা গ্রাহকদের পানির নিচে সেলফি তুলতে প্ররোচিত করে। কিন্তু কয়েকশ ব্যবহারকারী অভিযোগ করে জানান, পানির নিচে ঠিকঠাক কাজ করে না গ্যালাক্সি ফোন। কিছু ফোন সমুদ্রের লবণাক্ত পানির নিচের ছবি তুলতে গিয়ে বন্ধ হয়ে গেছে। এ ঘটনাকে ক্রেতাদের সঙ্গে প্রতারণা হিসেবে আখ্যায়িত করে অস্ট্রেলিয়ার নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। সংবাদ মাধ্যম রয়টার্স ও জিএএসএম এরিনা জানিয়েছে, অবশ্য আদালতে 'স্যামসাং অস্ট্রেলিয়া' গ্যালাক্সি ফোনের এসব মডেলের পানিরোধক ফিচার নিয়ে গ্রাহকদের বিভ্রান্ত করার অভিযোগ স্বীকার করে জরিমানা গুনতে রাজি হয়েছে। অবশ্য এ প্রসঙ্গে স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।