সিলেট-সুনামগঞ্জসহ বন্যাকবলিত এলাকায় দ্রুততম সময়ের মধ্যে ত্রাণ ও চিকিৎসা সামগ্রী পৌঁছানো এবং ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি ও সহায়তার দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। 

নেতারা বলেছেন, স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় সিলেট-সুনামগঞ্জের মানুষ বিপর্যয়কর পরিস্থিতিতে থাকলেও সরকার বন্যার্তদের রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে। অন্যদিকে অপরিকল্পিত উন্নয়নের ফলে বন্যা দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে।

সোমবার বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা সিলেটের বন্যা উপদ্রুত এলাকা পরিদর্শন শেষে নগরীর জিন্দাবাজারের ইমজা কার্যালয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এই দাবি জানান। 

নেতারা বন্যায় ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন এবং কৃষিঋণ ও এনজিও ঋণ মওকুফ করার দাবি জানান। হাওরাঞ্চলের অপরিকল্পিত উন্নয়ন বন্ধ করে প্রকৃতি পরিবেশ রক্ষা করে বন্যার প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানান নেতারা। 

বাম জোটের সিলেট জেলা সমন্বয়ক আবু জাফরের সভাপতিত্বে মতবিনিময়কালে জোটের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিপিবির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদের সহকারী সাধারণ সম্পাদক রাজেকুজ্জামান রতন, ইউসিএলবির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নজরুল ইসলাম, বাসদের (মার্কসবাদী) সমন্বয়ক মাসুদ রানা, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য শহিদুল ইসলাম সবুজ, ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় সদস্য বিধান দাস, স্থানীয় নেতা সৈয়দ ফরহাদ হোসেন, খায়রুল হাছান, অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন সুমন, সিরাজ আহমেদ, প্রণব জ্যোতি পাল, ডা. হিরধন দাস, সঞ্জয় কান্ত দাস প্রমুখ।

এর আগে বাম জোট নেতারা সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার চারখাইয়ের বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেন তারা।