ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করার ১২৭তম দিন চলছে। দেশটির বেশকিছু শহর ইতোমধ্যে দখলে নিতে সক্ষম হয়েছে রুশ সেনারা। এমন পরিস্থিতিতে বিশেষ সামরিক অভিযান শেষ করার তাড়া অনুভব করছেন না বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বুধবার তিনি নিজের এ মনোভাবের কথা জানান। খবর তাসের।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছে এবং তা শেষ করার জন্য কোনো সময়সীমা পূরণের প্রয়োজন নেই।

পুতিনের মতে, বিশেষ সামরিক অভিযানের লক্ষ্য হচ্ছে—দোনবাস অঞ্চল মুক্ত করা, সেখানে যারা বসবাস করছেন তাদের সুরক্ষা এবং ‘এমন পরিস্থিতি তৈরি করা যা রাশিয়ার নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে’।

পুতিন বলেন, খুব শান্ত ও ছন্দ অনুযায়ী কাজ চলছে। সেনারা এগিয়ে যাচ্ছে এবং লক্ষ্যবস্তুর দিকে পৌঁছে যাচ্ছে, যার জন্য তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। সবকিছুই চলছে পরিকল্পনা অনুযায়ী। 

যুদ্ধ শেষ কবে হবে সে বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে পুতিন বলেন,  সময়সীমা নিয়ে কোনো কথা বলার প্রয়োজন নেই। আমি কখনও এ বিষয়ে কথা বলি না, এটিই জীবন এবং এটিই প্রকৃত বিষয়।  এটিকে কোনো সময়সীমার মধ্যে চাপা দেওয়া ঠিক নয়।

‘এটি যুদ্ধের তীব্রতার সঙ্গে সম্পৃক্ত, এটি সরাসরি সম্পৃক্ত সম্ভাব্য হতাহতের সঙ্গে এবং সবকিছুর ওপর আমাদের ছেলেদের জীবনের সুরক্ষা নিয়ে ভাবতে হবে’, যোগ করেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

ফেব্রুয়ারিতে হামলার শুরুর পর ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছাকাছি চলে গিয়েছিল রুশ সেনারা। কিন্তু কিয়েভ ও অন্য শহর নিয়ন্ত্রণে নিতে ব্যর্থ হয়ে মার্চে নিজেদের লক্ষ্য পরিবর্তন করে মস্কো। এর পর দোনবাসকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা জানানো হয়।

এখন দোনবাসের শিল্পাঞ্চল দখলে নজর রাশিয়ার। দেশটির দাবি, ইউক্রেন সেখানে রুশভাষীদের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালাচ্ছে। মস্কো এ অঞ্চলকে গুরুত্ব দেওয়ার পর থেকে বেশ সাফল্য পেয়েছে বলা যায়। সম্প্রতি গুরুত্বপূর্ণ সেভেরোদোনেৎস্ক এলাকা দখলে নিয়েছে রুশ সেনারা। তবে ইউক্রেনীয় সোনাদের প্রতিরোধের মুখে তাদের অগ্রগামীতা অত্যন্ত ধীর।