বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, মৌলবাদ ও সামরিক শাসন একে অন্যের হাত ধরে পথ চলে। সামরিক শাসনের মধ্যেই মৌলবাদ বিকশিত হয়। সামরিক শাসন ও মৌলবাদকে নির্মূল করতে হলে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার কোনো বিকল্প নেই।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের মৌলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ হলে ‘৮০ দশকে ছাত্র আন্দোলন, বিধান চন্দ্র রায় ও বর্তমান প্রেক্ষিত’ শীর্ষক আলোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে রাশেদ খান মেনন এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশে সামরিক শাসন না থাকলেও তাদের দোসর মৌলবাদ বহাল তবিয়তে বিরাজ করছে। মৌলবাদকে রাষ্ট্র ও সমাজ থেকে নির্মূল করতে গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির বিকাশ ঘটাতে হবে। এ লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

মেনন বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে বিজয়ের মাধ্যমে মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে নিশ্চিহ্ন করতে হবে। এ লক্ষ্যে ১৪ দলকে আরো সংহত করতে প্রগতিশীল শক্তিকে সুদৃঢ় করতে হবে।’

ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকা মহানগর সভাপতি আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য নুর আহমদ বকুল, শরীফ শমশির, করিম সিকদার, জাকির হোসেন রাজু, মোস্তফা আলমগীর রতন, শেখ মো. টিপু সুলতান, শাহানা ফেরদৌসি লাকি, সেলিম মুজাহিদ, রাজু আহমেদ, মোজাম্মেল হক ফিরোজ, আবুল কালাম আজাদ, শফিকুল ইসলাম শফিক, কার্তিক চন্দ্র রায়, উত্তম কুমার রায়, সুখেন সুত্রধর প্রমুখ।