আংশিক মেঘলা। ডমিনিকায় বেলা জুড়ে এটাই ছিল আবহাওয়া পূর্বাভাস। নির্মম সমুদ্রযাত্রা শেষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচও ভেসে যাওয়ার শঙ্কা ছিল। তবে আকাশ মেঘলা থাকলেও বৃষ্টি হয়নি। নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত টসে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫ উইকেটে ১৯৩ রানের বড় সংগ্রহ পেয়েছে। 

ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করেছিল স্বাগতিকরা। খারাপ করেনি বাংলাদেশও। প্রথম ওভারে ১৪ রান তোলা দলটি দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওভারে উইকেট হারায়। ওপেনার কাইল মেয়ার্স ৯ বলে ১৭ করে ফিরে যান। তিনে নামা সামারাহ ব্রুক শূন্য করেন। 

এরপর ৭৪ রানের জুটি গড়েন ওপেনার ব্রেন্ডন কিং ও চারে নামা অধিনায়ক নিকোলাস পুরান। মোসাদ্দেক ওই জুটি ভাঙেন। তার আগে পুরান খেলেন ৩০ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ৩৪ রানের ইনিংস। এরপর কিং ও রোভম্যান পাওয়েল ঝড়ো শুরু করেন। 

ব্রেন্ডন কিং ফিরে যান ৪৩ বলে সাত চার ও এক ছক্কায় ৫৬ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন। তবে পাওয়েলের ঝড়ে লণ্ডভণ্ড অবস্থা হয় টাইগার বোলারদের। তিনি ২৮ বল খেলেন ৬১ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। ছয়টি ছক্কার শট তোলেন। চার মারেন দুটি। 

বাংলাদেশ বোলাররা অনুমিতভাবেই খরুচে ছিলেন। এর মধ্যে ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা সুখকর হলো না তাসকিনের। তিনি ৩ ওভারে ৪৬ রান খরচ করেন। শেখ মাহেদি ও সাকিব তাদের ৪ ওভারে যথাক্রমে ৩১ ও ৩৮ রান দিয়ে নেন একটি করে উইকেট। মুস্তাফিজ ৪ ওভারে দিয়েছেন ৩৫ রান। শরিফুল ২ উইকেট নিলেও ৪ ওভারে দেন ৬০ রান।