টেস্টে হোয়াইটওয়াশের পর টি-টোয়েন্টিতেও ব্যর্থ বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচ পরিত্যক্তের পর দ্বিতীয় ম্যাচে বাজেভাবে হেরেছে মাহমুদউল্লাহরা। সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে ক্যারিবীয়রা। বৃহস্পতিবার সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টি খেলতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি তাই হতে যাচ্ছে সিরিজ নির্ধারণী। গায়ানার প্রোভিডেন্স স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ৩০মিনিটে।

বাংলাদেশ অধিনায়ক স্পষ্ট করে জানিয়েছেন, টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে হলে দল হিসেবে খেলতে হবে। এতে ম্যাচ জয়ের জন্য আত্নবিশ্বাস পাবে বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ বলেন, 'আমরা সব সময়ই ম্যাচ জয়ের জন্য মনোনিবেশ করি। তবে টি-টোয়েন্টিতে জিততে হলে আমাদের মতো একটি দলকে, ইউনিট হিসেবেই খেলা উচিত। সবার নিজ-নিজ জায়গা থেকে অবদান রাখতে হবে। যা বুঝলাম, দল হিসেবে খেলাই আমাদের বড় শক্তি। আমরা যদি তা না করতে পারি, তাহলে আমাদের পক্ষে ম্যাচ জয় সম্ভব নয়।'

তিনি আরো বলেন, 'আপনি যদি আমাদের পেছনের দিকে তাকালে দেখবেন, আমাদের শুরুটা ভাল হলে আমরা ভাল করি এবং ভালো শুরু করতে হলে, সকলেরই ন্যূনতম অবদান থাকা উচিত। আমি বলছি না, আমরা জয়ের পথে ফিরতে পারবো না, তবে ভালো শুরু করলে, আমাদের আত্নবিশ্বাস বাড়বে।'

শেষবার ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হলেও, তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতেছিল। যদিও সেই টি-টোয়েন্টি সিরিজটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে।

বরাবরের মতই, টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের রেকর্ড সমৃদ্ধ নয়। ক্রিকেটের ক্ষুদ্র এই সংস্করণে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স নিম্নমুখী। তবে ক্যারিবিয়দের বিপক্ষে বাংলাদেশের হার-জিতের অনুপাত উপভোগ করার মতো। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৫টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। জয় আছে পাঁচটিতে, হার আটটিতে এবং ম্যাচ পরিত্যক্ত দু’টিতে। তবে সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত এই ফরম্যাটে ১২৭টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। যেখানে বাংলাদেশের জয় ৪৪টিতে, হার ৮০টিতে এবং ৩টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

দুই পরিবর্তন নিয়ে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ। মুনিম শাহরিয়ার ও নাসুম আহমেদের পরিবর্তে একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন তাসকিন আহমেদ ও মোসাদ্দেক হোসেন। সিরিজ ড্র করতে তৃতীয় ম্যাচে জিততে হবে, এ অবস্থায় আবারও দলে আসতে পারেন তারা।

বাংলাদেশ দল: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মুনিম শাহরিয়ার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, এনামুল হক, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, নুরুল হাসান (উইকেটরক্ষক), মেহেদী হাসান মিরাজ, মাহেদি হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, নাসুম আহমেদ ও তাসকিন আহমেদ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল: নিকোলাস পুরান (অধিনায়ক), রোভম্যান পাওয়েল, শামারাহ ব্রুকস, আকিল হোসেন, আলজারি জোসেফ, ব্রান্ডন কিং, কাইল মেয়ার্স , ওবেদ ম্যাককয়, কিমো পল, রোমারিও শেফার্ড, ওডেন স্মিথ ও। ডেভন থমাস (উইকেটরক্ষক), হেইডেন ওয়ালশ, ডোমিনিক ড্রাকস (রিজার্ভ)।