নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় হাত, পা ও চোখ বাঁধা অবস্থায় আনোয়ারা বেগম (৫০) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশের ধারণা, দুর্বৃত্তরা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে।

বুধবার বিকেলে উপজেলার সদাসদি কাজীপাড়া চকের বাড়ী  এলাকার নিজ ঘর থেকে ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত আনোয়ারা বেগম ওই এলাকার ওমর আলীর স্ত্রী। 

আড়াইহাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘স্বজনরা পুলিশকে জানালে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। নিহতের হাত, পা, চোখ কাপড় দিয়ে বাঁধা ছিল। তাছাড়া বাড়িতে সিঁধ কাটা। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে।

নিহতের ভাগ্নে হিরন সাংবাদিকদের বলেন, ‘খালু ওমর আলী এ বাড়িতে থাকেন না। আর একমাত্র খালাত ভাই মালয়েশিয়া প্রবাসী। ফলে খালা একাই বসবাস করেন বাড়িতে। মঙ্গলবার রাতে খালাত ভাই শরীফ দেশে আসার কথা ছিল। আসছে কিনা সেটি জানতে বিকেলে খালার বাড়িতে আসি। এসে দেখি দরজা বন্ধ। অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করলেও ভেতর থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। যার জন্য ঘরের জানালা ধাক্কা দিয়ে খুলে ভেতরে প্রবেশ করি। আর ঘরে ঢোকার পর দেখতে পাই খালা এভাবে পড়ে আছেন। তখন আত্মীয়-স্বজন ও পুলিশকে খবর দিই।’

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে, সিঁধকেটে ঘরে ঢুকে দুর্বৃত্তরা তাকে হাত, পা ও চোখ বেঁধে শ্বাসরোধে হত্যা করে। তবে ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে।