ভারতের পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার বাংলাদেশে অর্থ পাচার মামলার আসামি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারকে (পি কে হালদার) হস্তান্তরের জন্য দিল্লিকে ফের অনুরোধ জানিয়েছে ঢাকা।
গত সোমবার ঢাকায় দু'দেশের তৃতীয় কনস্যুলার সংলাপে বন্দি বিনিময় চুক্তির আওতায় এই অনুরোধ জানানো হয়। তবে ভারত আইনি প্রক্রিয়া শেষ করে তাঁকে ফেরতের বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছে।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, পি কে হালদারকে ফেরতসহ সাজা পাওয়া ও বন্দি নাগরিকদের দ্রুত প্রত্যাবাসন, বিশেষ করে পাচার হওয়া নারী ও শিশুদের প্রত্যাবাসন, পারমিট ইস্যু, প্রস্থান সহজীকরণ, দীর্ঘ সময়ের জন্য কনস্যুলার পারমিট ইস্যুসহ ভ্রমণ সংক্রান্ত নানা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে দুই দেশ। এতে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস। আর ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (কনস্যুলার, পাসপোর্ট ও ভিসা) ড. আউসফ সাঈদ।
বৈঠকে উপস্থিত বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের এক সদস্য সমকালকে বলেন, দু'দেশের কনস্যুলার সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বেশিরভাগ বিষয়ে চলমান সমস্যা উভয় দেশ দূর করতে একমত হয়েছে। পি কে হালদারকে ফেরতের অনুরোধে ভারত রাজি। তবে এখনই তাঁকে ফেরত দেওয়া সম্ভব হবে না বলে তারা জানিয়েছে। দেশটিতে পি কে হালদারের বিরুদ্ধে যে আইনি প্রক্রিয়া চলছে, তা শেষ হওয়ার পর তাঁকে ফেরত দেবে দিল্লি।
ঢাকার দেওয়া তথ্যে গত মে মাসে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হন পি কে হালদার।