ঋণ জালিয়াতির মাধ্যমে পদ্মা ব্যাংকের (সাবেক ফারমার্স ব্যাংক) প্রায় পৌনে তিন কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে করা মামলায় রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামান ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজল সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ রায় দেন।

তবে সাহেদের বিরুদ্ধে অস্ত্রসহ আরও কয়েকটি মামলা বিচারাধীন থাকায় তিনি এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না। আদালতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মোহাম্মদ খুরশীদ আলম খান।

সাবেক ফারমার্স ব্যাংকে ঋণ জালিয়াতির অভিযোগে ২০২০ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর সাহেদসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। সাহেদ এই ব্যাংক থেকে ১ কোটি ঋণ নিয়েছিলেন, যা সুদেআসলে মিলিয়ে গত ১৫ জুলাই পর্যন্ত দুই কোটি ৭১ লাখ টাকায় এসেছে।

ওই মামলায় সাহেদ হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন। পরে হাইকোর্ট জামিন প্রশ্নে রুল জারি করেন। বৃহস্পতিবার ওই রুল যথাযথ ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট।

২০২০ সালের ৬ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখায় অভিযান চালায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। অভিযানে করোনা ভুয়া পরীক্ষার রিপোর্ট, করোনা চিকিৎসার নামে রোগীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়সহ নানা অনিয়ম ধরা পড়ে।

পরদিন ৭ জুলাই রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় ১৭ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়। এরপর ১৫ জুলাই সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদকে আটক করে র‌্যাব।