ঢাকা আসছেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। ৬ আগস্ট তার ঢাকা আসার কথা রয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস। সমকালকে তিনি বলেন, ৬ আগস্ট সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তিনি ঢাকা থাকবেন।

সূত্র জানায়, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দুই দিনের সফরে ঢাকা আসছেন। তার সফরটি চূড়ান্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে ৬ আগস্ট পর্যন্ত কম্বোডিয়ায় একটি সম্মেলনে থাকছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ঢাকা সফরকে কেন্দ্র করে ৬ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টায় ঢাকা পৌঁছাবেন তিনি। ফলে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তিনি বিমানবন্দরে উপস্থিত থেকে স্বাগত জানাতে পারছেন না। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই-কে ঢাকায় স্বাগত জানানোর কথা রয়েছে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের। আর বাংলাদেশ ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে ৭ আগস্ট।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক ছাড়াও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। ৭ আগস্ট ওয়াং ইর ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, বর্তমান বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরটি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। একদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন সংকট, আরেকদিকে তাইওয়ান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে। বৈঠকের এজেন্ডায় দ্বিপক্ষীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যু থাকলেও আলোচনায় ছাপিয়ে যাবে আন্তর্জাতিক ভূরাজনৈতিক ইস্যুতে।

সূত্র জানায়, বৈঠকে বৈশ্বিক ইস্যুতে বাংলাদেশের সমর্থন চাইবে চীন। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ তার পররাষ্ট্রনীতি অনুসরণ করে যতটুকু চীনের পাশে থাকা যায়, সেই চেষ্টা করবে। আর সেই সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কথা বলবে বাংলাদেশ। চীনের মধ্যস্থতায় চীন-বাংলাদেশ-মিয়ানমারের মধ্যকার ত্রিপক্ষীয় বৈঠক করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়টিতে জোর দেবে ঢাকা। বিশেষ করে বাংলাদেশে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের আগে ১ হাজার ৫০০ রোহিঙ্গা, যাদের যাচাই-বাছাই হয়ে গেছে, তাদের ফেরত নেওয়ার মধ্য দিয়ে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করতে চায়। এ ছাড়া বৈঠকে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সফরে সই হওয়া ২৭টি চুক্তির অগ্রগতি পর্যালোচনা করবে দুই দেশ। আর দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সার্বিক বিষয় নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হবে।

জানা গেছে, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশ সফরে বের হয়েছেন। সফরটি শুরু হয়েছে গত ২৮ জুলাই উজবেকিস্তানের সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন এসসিওর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের মধ্য দিয়ে। এরপর আরও দুটি দেশে সফর শেষে ঢাকা আসছেন ওয়াং ই। বাংলাদেশ সফরের পর তার মঙ্গোলিয়া সফরের কথা রয়েছে।