শুক্রবার রাতে হঠাৎ জ্বালানি তেলের দাম অকল্পনীয়ভাবে বাড়িয়েছে সরকার। এতে বাড়বে গণপরিহনের খরচ। তাই ভাড়া সমন্বয় করা হবে। এতে প্রতি কিলোমিটারে বাসভাড়া সর্বোচ্চ ২৯ পয়সা আর লঞ্চে ৪২ পয়সা বাড়ানো হতে পারে।

আজ শনিবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ভাড়া বাড়ার এই ধারণা দিয়েছে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে। 

এতে জানানো হয়েছে, বর্তমানে দূরপাল্লার বাসে (৫২ আসনের) প্রতি কিলোমিটারে প্রত্যেক যাত্রীর ভাড়া ১ টাকা ৮০ পয়সা। ডিজেলে দাম লিটারপ্রতি ৩৪ টাকা বাড়ানোয় প্রতি কিলোমিটারে ২৯ পয়সা বেড়ে এই ভাড়া হবে ২ টাকার মতো। প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়ছে ১৬ দশমিক ২২ শতাংশ।

বর্তমানে সিটি এলাকায় (৫২ আসনের) বাসে প্রতি কিলোমিটারের প্রত্যেক যাত্রীর ভাড়া ২ টাকা ১৫ পয়সা। প্রতি কিলোমিটারে ২৮ পয়সা বেড়ে এই ভাড়া হবে ২ টাকা ৪৩ পয়সার মতো। প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়ছে ১৩ দশমিক ১৬ শতাংশ।

এ ছাড়া লঞ্চে বর্তমানে প্রতি কিলোমিটারে প্রত্যেক যাত্রীর ভাড়া ২ টাকা ১৯ পয়সা। প্রতি কিলোমিটারে ৪২ পয়সা বেড়ে এই ভাড়া হবে ২ টাকা ৬২ পয়সা। সে হিসাবে প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়ছে ১৯ দশমিক ১৮ শতাংশ।

এদিকে ভাড়া বাড়াতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) বরাবর আবেদন করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। আজ শনিবার বিকেল ৫টায় পরিবহনের ভাড়া সমন্বয়ে বৈঠকে বসবে বিআরটিএর ভাড়া পুনর্নির্ধারণ কমিটি। বৈঠকে সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে জ্বালানি তেলের দামের সঙ্গে সমন্বয় করে ভাড়া বাড়ানো হতে পারে। বর্ধিত ভাড়ার ঘোষণা আসতে পারে আজ রাতেই। 

সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি সূত্রে জানা গেছে, কিলোমিটারপ্রতি ঢাকায় ডিজেলচালিত বাসভাড়া সাড়ে তিন টাকা করার প্রস্তাব করা হবে। বৈঠকে এই প্রস্তাবনা নিয়ে আলোচনা হবে। 

শুক্রবার রাতে ডিজেলের দাম বেড়েছে এক লাফে ৪২.৫ শতাংশ। এছাড়া অকটেন, পেট্রোল, কেরোসিনের দাম বেড়েছে যথাক্রমে ৫১.৬৮, ৫১.১৬ ও ৪২.৫ শতাংশ। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর পর আজ সকাল থেকে রাজধানীর সড়কে কমেছে বাস চলাচল। বিআরটিসি ছাড়া বেসরকারি বাস সেভাবে পথে নামেনি।