খুলনা মহানগরীতে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে ডিজিটাল ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপনসহ পাঁচ দফা দাবি জানিয়েছে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) মহানগর শাখা। রোববার খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

নিসচার দাবিগুলো হলো- নগরীর সব সড়কে ডিজিটাল ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপন, ফুটপাত অবৈধ দখল মুক্তকরণ, সড়কের ওপর রেখে ইট-বালুর ব্যবসা বন্ধ করা, রিকশা-ইজিবাইক চালকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা এবং অবৈধ ইজিবাইক, লাইসেন্সবিহীন থ্রি-হুইলার, মাহিন্দ্রা, ট্রলি ও ইঞ্জিনচালিত রিকশা বন্ধ করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান নিসচার উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে ট্রাফিক সিগন্যাল গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কিন্তু দেশের তৃতীয় বৃহৎ নগরী খুলনার সড়কে ট্রাফিক সিগন্যাল নেই। ট্রাফিক সাইন-সিগন্যাল স্থাপন না করে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে স্পিডব্রেকার করা হয়েছে। অন্যদিকে শের-এ বাংলা রোড ও রূপসা-শিপইয়ার্ড সড়ক সংস্কার কাজ এক যুগেও করতে পারেনি সড়ক ও জনপথ বিভাগ। নগরবাসী এসব ভোগান্তি থেকে মুক্তি চায়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন (নিসচা) মহানগর শাখার সভাপতি এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মুন্না, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য শ্যামল সিংহ রায়, ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর শাখার সভাপতি শেখ মফিদুল ইসলাম, নাগরিক সমাজের সদস্য সচিব বাবুল হাওলাদার, গণসংহতি আন্দোলনের জেলা আহ্বায়ক মুনীর চৌধুরী সোহেল, নিসচার সহসভাপতি শেখ নাসির উদ্দিন, রকিব উদ্দিন ফারাজী, ফারহানা চৌধুরী কণিকা, শিরিন পারভীন, আবু মুছা, শামীম হোসেন, মাহমুদা আক্তার লিজা, তানিয়া সুলতানা, কামাল হোসেন, মফিজ আহমেদ মজুমদার প্রমুখ।