জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজ হারের পর ওয়ানডে সিরিজেও হেরেছে বাংলাদেশ। দুই ম্যাচেই ব্যাট হাতে ভালো শুরু পেলেও প্রত্যাশিত রান বড় করতে পারেনি রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। বল হাতে শুরুতে ব্রেক থ্রু দিলেও আগ্রাসী বোলিংয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে পারেনি। 

দলের এই রক্ষণাত্মক মানসিকতার দায় কোচিং স্টাফকে দিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্সের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। তিনি মনে করেন, কোচরা ক্রিকেটারদের মধ্যে আগ্রাসী মানসিকতা গড়ে তুলতে পারেননি। 

সংবাদ মাধ্যমকে সোমবার তিনি বলেন, ‘কোচরা খুবই নিবেদিত। তাদের কাজ নিয়ে কোন প্রশ্ন নেই। হয়তো তাদের কোচিং স্টাইল কিছুটা ভিন্ন। কিছু কোচ আগ্রাসী হন। যেমন হাথুরুসিংহে ছিলেন। ওমন আগ্রাসী কোচ দরকার আমাদের। ডমিঙ্গো খুবই বুদ্ধিদীপ্ত একজন কোচ। কিন্তু তার মধ্যে ওই আগ্রাসন নেই।’    

তিনি জানান, জিম্বাবুয়ে সিরিজ শেষে কোচদের সঙ্গে আগ্রাসনের বিষয় নিয়ে কথা বলবেন তারা। হুট করে বিসিবি কোচ পরিবর্তনের পক্ষে নয় বলেও উল্লেখ করেন সিনিয়র এই বোর্ড কর্মকর্তা। তিনি মনে করেন, খেলোয়াড়দের আগ্রাসী ক্রিকেট খেলতে উদ্বুদ্ধ করার সামর্থ্য কোচিং স্টাফের আছে।

জিম্বাবুয়ে সফর শেষে কোচরা সংক্ষিপ্ত ছুটিতে যাবেন। ১৯ আগস্ট ঢাকায় ফিরবেন। পরদিনই কোচদের সঙ্গে বোর্ড কর্তারা বসবেন বলে জানিয়েছেন জালাল ইউনুস, ‘আমরা কোচদের সঙ্গে বসবো। সামনে আমাদের দুটি টুর্নামেন্ট (এশিয়া কাপ ও টি-২০ বিশ্বকাপ) আছে। আগামী বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাদা বলের সিরিজ আছে। তার আগে আমরা তাদের পরিকল্পনা শুনতে চাই।’