ঢাকার নবাগঞ্জে প্রশিক্ষণকালীন হেলিকপ্টারে যান্ত্রিক ত্রুটিতে দুর্ঘটনায় পড়ে আহত সেনা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। 

মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তিনি র‌্যাবের এয়ার উইং পরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার বয়স হয়েছিল ৪৫ বছর। তিনি বাবা, মা, স্ত্রী ও দুই ছেলে সন্তান রেখে গেছেন। র‌্যাবের সদর দপ্তর থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। 

র‌্যাব জানায়, গত ২৭ জুলাই ইসমাইল ঢাকার নবাবগঞ্জে প্রশিক্ষণকালীন হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আহত হন। পরে তাঁকে উদ্ধার করে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। দুর্ঘটনায় তিনি মেরুদণ্ডে গুরুতর আঘাত পান। পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত শুক্রবার তাকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেওয়া হয়। 

এরপর শনিবার তাঁর মেরুদণ্ডের সফল অস্ত্রোপচার হয়। কিন্তু অন্যান্য শারীরিক জটিলতার কারণে তার অবস্থার অবনতি হয়। পরে আজ আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। 

তাঁর এই অকাল মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, সেনাবাহিনী প্রধান শফিউদ্দিন আহমেদ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, আইজিপি, র‌্যাব মহাপরিচালক ও সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।