জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, আওয়ামী লীগ এখন খুব সমস্যায় আছে। ইচ্ছে করলেই এ সরকারকে এখন সরিয়ে দেওয়া যাবে। তবে আগামীতে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আসা লাগবে। কেন ক্ষমতায় আসা লাগবে? ক্ষমতায় এ জন্য আসা লাগবে কারণ, যদি বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসে তাহলে আওয়ামী লীগের খবর আছে।

গতকাল শনিবার বিকেলে জাপা মহাসচিব তার নির্বাচনী এলাকা করিমগঞ্জের জয়কা ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়কের উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন শেষে বারুক বাজারে এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। 

জাপা মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সবকিছুর দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৮-১২ ঘণ্টাও বিদ্যুৎ থাকে না। মানুষ কষ্টে আছে।

চুন্নু বলেন, আওয়ামী লীগ বলছে, তাদের ছেড়ে যেন চলে না যাই। এতদিন তাদের সঙ্গে ছিলাম, তাই একসঙ্গে থাকতে বলছে। অন্যদিকে বিএনপিও চাইছে আমরা যেন তাদের সঙ্গে যোগ দেই। তারা বলছে আমরা যা চাই তাই দেবে, আমরাও তাদের কাছে বড় কিছু চাইতে পারি। তবে তারাও ভালো না, বিদ্যুতের দাবিতে আন্দোলন করায় ২১ জনকে মেরেছিল তারা।

জাপা মহাসচিব বলেন, আমরা আগামী এক বছর সংগঠন ঠিক করব, দলটাকে একটু গুছাবো, এক বছর পরে সিদ্ধান্ত নেব কার পক্ষে যাব।

মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর আওয়ামী লীগ ২১ বছর ক্ষমতার বাইরে ছিল। এ সময় তারা চার খণ্ডে বিভক্ত হয়ে গিয়েছিল। অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। বিএনপি ১৩ বছর ধরে ক্ষমতায় নেই। আগামীতে ক্ষমতায় না এলে বিএনপি বিলীন হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ১৯৯০ থেকে ২০২২- এই ৩২ বছর ক্ষমতায় নেই। এ সময়ের মধ্যে দেশে সে রাজনৈতিক খেলা হয়েছে সেই খেলায় জাতীয় পার্টি শুধু রেফারির ভূমিকা পালন করেছে। আগামীতে রেফারি না ম্যারাডোনার খেলা খেলবে জাতীয় পার্টি।

জয়কা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি মো. আবুল হাসানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ এমদাদুল হকের সঞ্চালনায় জনসভায় আরও বক্তব্য দেন করিমগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উপজেলা জাপার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন খান দিদার, সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, নাজমুল সাকির নূরু সিকদার, জয়কা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির, সাবেক চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন, দেহুন্দা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আবু হানিফ, সাবেক চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সঞ্জু প্রমুখ।