শিক্ষার্থীদের আত্মহত্যা প্রবণতা ঠেকাতে কাউন্সেলিংয়ের জন্য মাধ্যমিক পর্যায়ের দুই লাখ শিক্ষককে প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। 

আজ বুধবার বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজির প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।  

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘অতিমারির মধ্যে মানুষের ব্যক্তি জীবনে, পারিবারিক জীবনে হতাশা তৈরি হয়েছে। তবে আমরা মাধ্যমিক পর্যায়ের দুই লাখ শিক্ষককে প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু করেছি। আমরা চাই প্রতিটি বিদ্যালয়ে দুজন শিক্ষক কাউন্সেলিংয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হবেন। তারা শিক্ষার্থীদের যেকোনো ধরনের সমস্যায় পরামর্শ দেবেন।’ 

সম্প্রতি আঁচল ফাউন্ডেশনের এক সমীক্ষায় বলা হয়েছে, চলতি বছরের প্রথম আট মাসে গড়ে ৪৫ জনের বেশি করে ৩৬৪ জন শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। প্রেমঘটিত কারণে বেশি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। বিগত আট মাসে আত্মহননকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৯৪ শতাংশ স্কুলগামী শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে ৩২ দশমিক ৯৯ শতাংশ পুরুষ এবং ৬৭ দশমিক শূন্য ১ শতাংশ নারী শিক্ষার্থী। 

কোচিং বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘কোচিংয়ে অনৈতিক অংশটুক হচ্ছে, শিক্ষক শ্রেণিকক্ষের নিজের শিক্ষার্থীদের তার কাছে প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করতে পারবেন না। না পড়লে তাকে বাধ্য করা হয়- এ ধরনের অভিযোগ আসে। আমরা শিক্ষা আইনে প্রস্তাব করেছি, কোনো শিক্ষক যেন তার নিজের শিক্ষার্থীকে প্রাইভেট না পড়ান, অন্য শিক্ষার্থীকে পড়াতে পারেন। এটি মন্ত্রিসভায় পাস হয়ে সংসদ যাবে।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘অতিরিক্ত পরীক্ষার চাপ ও সনদ নির্ভরতা থেকে আমরা বেরিয়ে আসতে চাই। নতুন শিক্ষা ব্যবস্থা হবে অভিজ্ঞতানির্ভর। প্র্যাকটিক্যাল শিক্ষাকে প্রাধান্য দেওয়া হবে।’