জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.ইমদাদুল হক বলেছেন,'বাইরের দেশের মতো ঘণ্টা অনুসারে খণ্ডকালীন চাকরি দেওয়ার পরিকল্পনা করছি আমরা। অনেক শিক্ষার্থী আছে, যারা টিউশন পায় না। আর্থিক অবস্থা খারাপ। তাদেরকে যদি খন্ডকালীন  চাকরির সুযোগ করে দেয়া যায়, তাহলে অন্তত তাদের থাকা-খাওয়ার আর্থিক যোগান হবে।

সোমবার পুলিশের উপ-পরিদর্শকে সুপারিশপ্রাপ্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন ।

উদাহরণ হিসেবে উপাচার্য বলেন, আমাদের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে লোকবল সংকট । এমন বিভিন্ন সেক্টরে যদি ঘণ্টা অনুসারে খণ্ডকালীন চাকরির ব্যবস্থা করা যায় তাহলে শিক্ষার্থীদের উপকার হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে এ সুযোগ তৈরি করার ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের।

তিনি আরো বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনেকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষা, গবেষণা ও চাকরিতে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান নিয়ে আসছে। চাকরির পথ সুগমে সকলের জন্য উন্মুক্ত লাইব্রেরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। ফলে শিক্ষার্থীরা ক্রমেই ভালো করছে। "

এবছর পুলিশের উপ-পরিদর্শকের ৩৯ তম ব্যাচে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০ জন শিক্ষার্থী সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন।

সুপারিশপ্রাপ্তদের শুভেচ্ছা জানিয়ে উপাচার্য বলেন,'আশা করছি সবাই দেশের জন্য কাজ করবে। সৎভাবে ও দেশাত্মবোধ নিয়ে সবাই সামনে এগিয়ে যাবে।দেশের শৃঙ্খলা রক্ষার কাজ তোমাদেরই করতে হবে।"

এসময় উপ-পরিদর্শক হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্মুক্ত লাইব্রেরিতে গড়ে উঠেছি। বিশ্ববিদ্যালয় আমাদেরকে এ সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। জুনিয়র শিক্ষার্থীদের জন্য কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে উন্মুক্ত লাইব্রেরির মতো সুযোগ করে দিলে সবাই সুবিধা পাবে।