কক্সবাজারের রামু উপজেলার বৌদ্ধবিহারে হামলার বিচার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রামু কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ যুব পরিষদের উদ্যোগে লালচিং-মৈত্রী বিহারের সামনে এ মানববন্ধন হয়।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে কোরআন অবমাননার অভিযোগে ২০১২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর রামুতে কয়েকশ বছরের প্রাচীন বৌদ্ধবিহারসহ ১২টি বিহার ও ২৬টি বসতঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়। এ ঘটনার ১০ বছরেও ১৮টি মামলার একটি মামলারও বিচার কাজ শেষ না হওয়ায় মানববন্ধনে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তাঁরা বলেন, যারা সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটিয়েছিল, তারা দুর্বৃত্ত। আমরা তাদের শাস্তি চাই।
মানববন্ধন ছাড়াও বিহার প্রাঙ্গণে মহাসংঘদান, অষ্টপরিস্কার দান ও ধর্মসভা অনুষ্ঠিত হয়। রামুর পানেরছড়া বৌদ্ধবিহারের অধ্যক্ষ সুচারিতা মহাথেরোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন বিশ্বনাগরিক ড. ধর্মকীর্তি মহাথেরো। প্রধান বক্তা ছিলেন কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল। বক্তব্য দেন রামু কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ যুব পরিষদের সভাপতি কেতন বড়ূয়া, সাধারণ সম্পাদক বিপুল বড়ুয়া প্রমুখ।