রাজধানীর আবদুল্লাহপুর থেকে গাজীপুরের টঙ্গী পর্যন্ত এলাকায় ছিনতাই করে শরিফ হোসেনের দল। এই রুটে যাতায়াতকারীদের অস্ত্র দিয়ে আঘাত বা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে চলে ছিনতাই। সন্ধ্যার পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলে তাদের তাণ্ডব। ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে এমন অভিযোগ পেয়ে এই চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১।

শরিফ ছাড়া গ্রেপ্তার অপর চার যুবক হলো- আবদুল্লাহ বাবু, শ্যামল হোসেন, নাছির রাজ ও সাজেদুল আলম। বৃহস্পতিবার রাত ও শুক্রবার ভোরে গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ব্যাপারে জানাতে শুক্রবার দুপুরে উত্তরায় র‌্যাব-১ এর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

এতে র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবদুল্লাহ আল মোমেন বলেন, ছিনতাই করা মোবাইল ফোনগুলো দলনেতা শরিফের কাছে জমা হতো। এক দিনে এই দলটি সর্বোচ্চ ৫০টি ফোনও ছিনতাই করেছে। পাঁচ বছর ধরে ছিনতাইয়ে জড়িত শরিফ। সে কম দামে ফোনগুলো কিনে বাবু ও শ্যামলের মাধ্যমে বিক্রি করত।