পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও উত্তেজনার মধ্যেই বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সংবর্ধনা ও পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার শহরের সাতমাথায় মুবিজ মঞ্চে সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। এদিকে মুজিব মঞ্চ থেকে মাত্র ৩০ গজ দূরে পদবঞ্চিতরা কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করে।

আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মুজিব মঞ্চে অনুষ্ঠিত ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মজিবর রহমান মজনু।

সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাসের সঞ্চালনায় নবগঠিত কমিটিকে সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন নবাব, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাজেদুর ইসলাম শাহিন। জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী ও সমর্থকরা মিছিলসহ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেয়।

এদিকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের পরপরই জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে কয়েকদিন ধরে অবস্থানরত ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভকারীরা এ সমাবেশ আয়োজন করেন।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহন। এছাড়াও ছাত্রলীগ নেতা তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ, সিদ্ধার্থ কুমার সাহা, মাহফুজার রহমান, মিথিলেস কুমার প্রসাদ, রাকিবুল হাসান শাওন, নূর মোহাম্মাদ সাগরসহ বেশকিছু নেতাকর্মী বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

ছাত্রলীগের কমিটিকে অবৈধ উল্লেখ করে মঞ্জরুল আলম মোহন বলেন, চারদিন ধরে একটি অযোগ্য কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ করা হচ্ছে। এ আন্দোলনের সঙ্গে আমি একাত্মতা ঘোষণা করছি।

প্রসঙ্গত, গত ৭ নভেম্বর সজিব সাহাকে সভাপতি এবং মাহিদুল ইসলাম জয়কে সাধারণ সম্পাদক করে বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের ৩০ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এ কমিটিতে কাঙ্খিত পদ না পেয়ে জেলা ছাত্রলীগের একাংশ বিক্ষোভ করে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেয়। পরে আওয়ামী লীগ নেতাদের হস্তক্ষেপে বৃহস্পতিবার দুপুরে তালা খুলে দেয়া হলেও রাত ৯টায় আবারও তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয়। আজ শুক্রবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা তালা খুলে দলীয় কার্যালয়ে প্রবেশ করেন।