প্রবীণ ব্যক্তিদের জন্য প্রয়োজন অর্ন্তভূক্তিমূলক সেবা। দেশের মানুষের গড় আয়ু বাড়লেও প্রবীণদের প্রয়োজনীয় সেবার অবকাঠামো গড়ে উঠেনি, নেই কোনো টেকসই পরিকল্পনা। তাই প্রবীণরা ভোগেন নানা সমস্যায়। শহুরে জীবনে প্রবীণদের অবস্থা আরও করুণ বলে মনে করেন বিজ্ঞজনেরা। এমন প্রবীণদের জন্য বিনোদন, চিকিৎসা, সামাজিক আচার-অনুষ্ঠান আয়োজনের সুবিধা নিয়ে গড়ে তোলা হবে 'হ্যাপি হোম এন্ড রিক্রিয়েশন সেন্টার'।

রোববার রাজধানীর গুলশান ক্লাবে দৈনিক ইত্তেফাক ও পাক্ষিক অনন্যার আয়োজনে এ বিষয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন ইত্তেফাক ও অনন্যা'র সম্পাদক তাসমিমা হোসেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও উন্নয়ন গবেষক ড. হালিদা হানুম আক্তার। এছাড়া প্রবীণ নিবাস প্রকল্পের প্রাথমিক ধারণা উপস্থাপন করেন প্রবাসী স্থপতি ও প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট এক্সপার্ট আসিফ জাহান।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, এজন্য তারা একটি জমি নির্ধারণ করেছেন। এখন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে কীভাবে কাজ করবে 'হ্যাপি হোম এন্ড রিক্রিয়েশন সেন্টার'। শুরুতে একটি সেন্টার হলেও পরে প্রবীণদের জন্য প্রয়োজনীয় সব রকম সুবিধা নিয়ে গড়ে তোলা হবে একটি প্রবীণ নিবাস। দেশ ও দেশের বাইরে থেকে প্রবীণ ব্যক্তির সেবা গ্রহনে আগ্রহী করা হবে বলেও তারা জানান। অনুষ্ঠানে বলা হয়, এই পরিকল্পনায় যে কেউ বিনিয়োগ করতে পারবে। তবে শুধু অর্থ নয়, প্রবীণদের প্রয়োজনীয় কেয়ার গিভার, ওষুধ, দক্ষ সেবা দানকারী, চিকিৎসক, বিনোদন দেয়ারও ব্যবস্থা করা যাবে।

তাসমিমা হোসেন বলেন, 'আমাদের সমাজে প্রবীণ নারী-পুরুষ উভয়েরই নানা রকম সমস্যা থাকে। কিন্তু আমরা তার কতটুকুই জানি। তাদের জন্য আমরা বিনিয়োগ করতে চাই। আমরা শুরু করছি-অনেক পরিকল্পনা করা হবে আর পরিকল্পনা কিভাবে টেকসই ভাবে প্রবীণদের কাজে লাগবে সে জন্য আমরা সব রকম অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে চাই।

ডা. হালিদা হনিুম বলেন, 'প্রবীণ মানুষের দুঃখ কষ্ট কমানোর জন্য আমরা কাজ করছি। আমাদের বয়স যাই হোক, সে বয়সে যা প্রয়োজন তা বিশ্বকে দিতে হবে। এটা প্রবীণদের অধিকার।'
মেজর জেনারেল (অব.) জীবন কানাই দাস বলেন, দেশে প্রবীণ ব্যক্তিদের জন্য দক্ষ কেয়ারগিভার নেই। এ বিষয়ে আমরা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে কাজ করছি।

ডা. রুমানা দৌলা বলেন, 'কোনও পরিকল্পনা সফল বাস্তবায়নের জন্য নীতিমালা প্রয়োজন। দেশে রাজধানী কেন্দ্রিক কাজ হচ্ছে। তবে সম্মিলিতভাবে কাজ করা জরুরি।'

সমাজকর্মী হাসান আলী বলেন, 'প্রবীণ নিবাসের পরিকল্পনা নতুন কিছু নয়। অনেক প্রবীণ নিবাস ব্যর্থ হয়। এর পেছনের গল্পটা আমাদের জানতে হবে। সেই বিষয়গুলো মাথায় রেখে এগিয়ে যেতে হবে।'

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) ডা. সুরাইয়া রহমান, সাবেক সচিব রীতি ইব্রাহীম আহসান, উন্নয়নকর্মী মমতাজ চৌধুরী। এসময় উপস্থিত ছিলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) ডা. বাশিদুল ইসলাম, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র ডিরেক্টর সৈয়দা সারওয়াত আবেদ, টাঙ্গাইল শাড়ি কুটিরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরা এমদাদ, লেখক ঝর্ণা রহমান প্রমুখ।