বলিউড অভিনেত্রী নোরা ফাতেহিকে নিয়ে বাংলাদেশে অনুষ্ঠান আয়োজনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ট্যাক্স বা ভ্যাট আদায়ের বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে পারলেও অনুষ্ঠান বন্ধ করার কোনো এখতিয়ার রাখে না বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার সচিবালয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশের পর্যটন আকর্ষণ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, নোরা ফাতেহি একজন স্বনামধন্য অভিনেত্রী। আগামী কাতার বিশ্বকাপে ‘থিম সং’ তিনি পারফর্ম করবেন। এর আগে বিশ্বকাপ আসরগুলোতে যেমন শাকিরাসহ বিশ্ববরেণ্য তারকারা করেছেন।

তিনি আরও বলেন, নোরা ফাতেহিকে একটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে এনে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ডকুমেন্টারি করতে চায়। এর জন্য আমরা অনুমতি দিয়েছি। এক্ষেত্রে ট্যাক্স আদায় বা ভ্যাট আদায়ে এনবিআর অবশ্যই তাদের নোটিশ দিতে পারে। কিন্তু এনবিআর অনুষ্ঠান বন্ধ করার এখতিয়ার রাখে না।

সরকার তাদের অনুষ্ঠান করার অনুমতি দিয়েছে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, এনবিআর অবশ্যই ট্যাক্স ভ্যাট আদায় করার এখতিয়ার রাখে। কিন্তু সরকার অর্থাৎ মন্ত্রণালয় যেখানে অনুষ্ঠান করার অনুমতি দিয়েছে, সেখানে অনুষ্ঠান বন্ধ করার কোনো এখতিয়ার এনবিআর রাখে না।

প্রসঙ্গত, আগামী ১৮ নভেম্বর ঢাকার একটি কনভেনশন সেন্টারে নোরা ফাতেহিকে নিয়ে অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করেছে ওমেন্স লিডারশিপ কর্পোরেশন নামে একটি প্রতিষ্ঠান। ‘গ্লোবাল এচিভারস অ্যাওয়ার্ড-২০২২’ এ অংশ নিতে এসে ওই অনুষ্ঠানে জমকালো মঞ্চে নাচবেন নোরা ফাতেহি।

গত ৮ নভেম্বর ওই অনুষ্ঠানের অনুমতি দিয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণায়। একইসঙ্গে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চারটি শর্তও বেঁধে দেওয়া হয়। তাতে বলা হয়েছে, একদিন বাংলাদেশে অবস্থান করে শুধু ডকুমেন্টরির শুটিংয়ে অংশ নিতে পারবেন এই বলিউড তারকা। এর বাইরে আর কোনো কাজ বা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারবেন না।

এছাড়া নোরা ফাতেহির পেছনে যাবতীয় খরচের উপর ৩০ শতাংশ হারে দেওয়া অগ্রিম কর সরকারকে দিতে হবে। তা না হলে প্রামাণ্যচিত্রটি সেন্সর ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য বিবেচনায় আনা হবে না বলেও শর্তে উল্লেখ করা হয়।

নোরা ফাতেহিসহ অন্যান্য বিদেশি শিল্পীদের নিয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট/কর) ফাঁকির অভিযোগ তুলেছে এনবিআর। ভ্যাট বিভাগে দ্বিতীয় সচিব মোহাম্মদ আবদুস সাদেক স্বাক্ষরিত এক চিঠি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এর আগে গত ১৩ নভেম্বর পৃথক চিঠিতে একই বিষয়ে উৎসে আয়কর পরিশোধ করার বাধ্যবাধকতা বিধান পালন না করায় আপত্তি জানিয়েছিল এনবিআরের আয়কর বিভাগ।