ঢাকা সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪

শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিতে মেহনত করতে হবে

শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিতে মেহনত করতে হবে

.

 গাজীপুর ও টঙ্গী প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ২৩:২৫

শীতের আধিপত্য থাকলেও শনিবার কুয়াশার দাপট তেমন ছিল না টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে। সূর্য ওঠার সঙ্গে সঙ্গে সকালের নরম রোদে কিছুটা উবে যায় শীতের তীব্রতাও। ফজরের নামাজ শেষে কিছু সময় জিকির-আসকারের পর মূল মঞ্চ থেকে শুরু হয় আমবয়ান। এভাবে দিনভর চলে উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেমদের বয়ান। তারা মুসল্লিদের তাবলিগের কাজে বের হওয়ার আহ্বান জানান এবং বলেন, বিশ্বব্যাপী শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিতে জানমাল দিয়ে মেহনত করতে হবে।

এদিন সকালের মিষ্টি রোদ পোহাতে পোহাতে লাখ লাখ মুসল্লি ধ্যানমগ্ন হয়ে শুনছিলেন ভারতের মুম্বাইয়ের প্রখ্যাত আলেম মাওলানা আব্দুর রহমানের বয়ান। উর্দু ভাষার মূল বয়ান বাংলায় তরজমা করে শোনান মাওলানা আব্দুল মতিন। তখনও চারদিক থেকে স্রোতের মতো মুসল্লি দলে দলে আসছিলেন ইজতেমা ময়দানে। 
প্রায় দুই বর্গকিলোমিটার আয়তনের মূল শামিয়ানা কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে আগেই। পরে আসা মুসল্লিরা শামিয়ানার বাইরে খোলা আকাশের নিচে পাটি, চট বা চাটাই বিছিয়ে 
আশ্রয় নিয়েছেন।  

হজের পরে মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে অংশ নিতে তুরাগতীর জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। আজ 
রোববার এ পর্বের আখেরি মোনাজাতে দেশ-বিদেশের অন্তত অর্ধকোটি মানুষ অংশ নেবেন বলে ধারণা করছে কর্তৃপক্ষ। 
আজ রোববার সকাল ১০টার পরে যে কোনো সময় কাকরাইল মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফেজ মাওলানা যোবায়ের আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন বলে জানিয়েছেন ইজতেমা ময়দানের মিডিয়া সমন্বয়কারী হাবিবুল্লাহ রায়হান। 

ইমান আমলের মেহনতে আহ্বান
ইজতেমা ময়দানে দিনভর চলে হৃদয়গ্রাহী বয়ান। ফজরের নামাজের পর মাওলানা আব্দুর রহমানের উর্দু বয়ান দিয়ে শুরু দিনের কার্যক্রম। জোহর নামাজের পর উর্দুতে বয়ান করেন ভারতের মাওলানা ইসমাইল দোদরা। আসর নামাজের পর বয়ান করেন ভারতের মাওলানা জুহাইরুল হাসান। এ ছাড়া মিম্বার থেকে আলেমদের উদ্দেশে বয়ান করেন ভারতের মাওলানা ইব্রাহীম দেওলা, পাকিস্তানের মাওলানা আহমেদ হোসাইন। 

ইজতেমায় মূল বয়ান উর্দুতে হলেও অংশ নেওয়া বিভিন্ন ভাষাভাষি মুসল্লিদের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে বাংলা, ইংরেজি, আরবি, তামিল, মালয়, তুর্কি ও ফরাসিসহ বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদ শোনানো হয়। 
বয়ানে আলেমরা বলেন, পরকালের চিরস্থায়ী সুখ-শান্তির জন্য আমাদের প্রত্যেককে দুনিয়াতে জীবিত থাকা অবস্থায় দ্বীনের দাওয়াতের কাজে জানমাল দিয়ে মেহনত করতে হবে। 

যৌতুক ছাড়া বিয়ে
প্রতি বছরের মতো এবারও ইজতেমা ময়দানে যৌতুকবিহীন বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল আসর নামাজের পর মূল মঞ্চের পাশে এ বিয়ের আসর বসে। ৭২ জোড়া বর ও কনেপক্ষের উপস্থিতিতে বিয়ে পড়ান ভারতের মাওলানা জুহাইরুল হাসান। বিয়েতে মোহরানার পরিমাণ ধরা হয় দেড়শ তোলা রুপা বা তার সমমূল্যের অর্থ। 

মহিলা ও প্রতিবন্ধীদের অংশগ্রহণ
ইজতেমা এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, আখেরি মোনাজাতে অংশ নেওয়ার জন্য শত শত মহিলা আশপাশের মিল-কারখানা ও বাসাবাড়ির ভেতর অবস্থান নিতে শুরু করেছেন। মহিলাদের জন্য আলাদা কোনো জায়গার ব্যবস্থা না থাকায় তারা বাধ্য হয়ে নিজ উদ্যোগে পর্দায় ঘেরা বিভিন্ন স্থানে বসার জায়গা করে নিচ্ছেন। বিশ্ব ইজতেমা ময়দানের তাশকিল কামরার পাশে প্রতিবন্ধীদের ইজতেমায় অংশগ্রহণের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ব্যবস্থায় দুই শতাধিক প্রতিবন্ধী বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিয়েছেন। 

আরও পড়ুন

×