ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

খেজুর-বরই নিয়ে সংবাদ মিডিয়ার সৃষ্টি: শিল্পমন্ত্রী

খেজুর-বরই নিয়ে সংবাদ মিডিয়ার সৃষ্টি: শিল্পমন্ত্রী

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। ফাইল ছবি

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১১ মার্চ ২০২৪ | ০৫:০২

খেজুর ও বরই নিয়ে প্রচারিত হওয়া সংবাদটি মিডিয়ার সৃষ্টি বলে মন্তব্য করেছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তিনি বলেছেন, ‘খেজুরের পরিবর্তে নয়, আমি খেজুরের সঙ্গে বরই খাওয়ার কথা বলেছিলাম। আমার বক্তব্য অপব্যাখ্যা করা হয়েছে। এ ইস্যু নিয়ে সাবেক তথ্যমন্ত্রীর (জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু) বক্তব্যও মিসইন্টারপ্রেট (ভুল ব্যাখ্যা) করা হতে পারে। এগুলো মিডিয়ার তৈরি। যারা কারসাজি করতে চায়, তারা সরকারকে বিব্রত করতে নানাভাবে এ কাজ করছে। 

রোববার রাজধানী তেজগাঁওয়ে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানা ও বিএসটিআইর মহাপরিচালক এস এম ফেরদৌস আলম। 

গত ৪ মার্চ জেলা প্রশাসক সম্মেলনে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘বরই দিয়ে ইফতার করেন না কেন? আঙুর লাগবে কেন, আপেল লাগবে কেন? আমাদের দেশে আর কিছু নাই? পেয়ারা দেন না, প্লেটটা ওইভাবে সাজান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তো বলেই দিয়েছেন যে, ইফতার পার্টি দরকার নেই। অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা।’

শিল্পমন্ত্রীর এ বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘আমি বরই দিয়ে ইফতার করব, আর তুই খেজুর আর আঙুর খাবি?’ ইনুর এ বক্তব্যটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়।

সাংবাদিকরা এ বিষয়ে শিল্পমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টির ভিন্ন ব্যাখ্যা করা হয়েছে। আমি আগেও বলেছি, মিসইন্টারপ্রেট হয়েছে। অনেকের অনেক জায়গায় জ্বালা আছে। সে জ্বালা থেকে তারা হয়তো ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করেছে। ওই কষ্ট তো আমরা লাঘব করতে পারব না।’ তিনি বলেন, ‘জনগণই বিচার করবে, আমরা কোনো উত্তর দিতে চাচ্ছি না। তারা পাগল হয়ে গেছে। আমি খেজুরের পরিবর্তে বলিনি; আমি বলেছি খেজুরের সঙ্গে। ইফতারের প্লেটটা দেশীয় ফল দিয়ে সাজান।’

হাসানুল হক ইনুর বিষয়ে তিনি বলেন, ইনুর সঙ্গে তাঁর খুব ভালো সম্পর্ক। ইনু এ ধরনের কথা বলতে পারেন, তা তিনি বিশ্বাস করেন না। তাঁর মতে, ইনু দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী। কেউ ভিন্ন উদ্দেশ্যে এসব বক্তব্য প্রচার করে থাকতে পারে। ভিন্ন খাতে নেওয়ার জন্য, সরকারকে বিব্রত করার জন্য এটা করা হয়ে থাকতে পারে।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, অনেক ব্যবসায়ী জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে সৌদি আরব চলে গেছেন। ভেজালের বিরুদ্ধে সরকার জিরো টলারেন্সে রয়েছে। যারা প্রতারণা করতে চায়, তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে। তবে ভালো ব্যবসায়ীদের হয়রানি করা হবে না। 


 

আরও পড়ুন

×