সীমান্তে স্থিতিশীলতা আনতে এবং উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে একত্রে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন  মিয়ানমারের জান্তা প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং। 

মিয়ানমারের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দেশবাসীর উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে তিনি এই আগ্রহের কথা জানান। আজ বুধবার মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল এমআরটিভিতে এই ভাষণ প্রচার হয়।

ভাষণে মিন অং হ্লাইং বলেন, 'আমরা কিছু আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক দেশ এবং সংস্থা ও ব্যক্তিকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, যারা সব ধরনের চাপ, সমালোচনা ও হামলার মধ্যেই ইতিবাচকভাবে আমাদের সহযোগিতা করেছে।'

তিনি বলেন, 'আমরা চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, লাওস ও বাংলাদেশের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছি। সীমান্তের স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের জন্য আমরা একত্রে কাজ করবো।'

আজ বুধবার ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছে মিয়ানমার। ১৯৪৮ সালের এই দিনে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা পায় দেশটি।

দিনটি উপলক্ষে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে বাংলাদেশসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার আগ্রহের কথা জানালেও রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে কিছু বলেননি তিনি। 

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রাখাইন অঞ্চলে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্বিচারে হত্যা ও নির্যাতন শুরু করে। তখন সীমান্ত অতিক্রম করে প্রায় ৭ লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশের কক্সবাজারে এসে আশ্রয় নেয়। আগে থেকেই এখানে ছিল আরও কয়েক লাখ নিপীড়িত রোহিঙ্গা।

বিষয় : মিয়ানমারের জান্তা প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং

মন্তব্য করুন