বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চল থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্মানজনক ‘জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি পুরস্কার’ অর্জন করায় ঢাকার রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের বিজয়ী দল ও প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, এমপি। সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এমপি’র সঙ্গে ‘ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ মডেল ইউনাইটেড নেশনস এসোসিয়েশন’ এর কয়েকজন সদস্য শিক্ষার্থী সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিজয়ী দলসহ সংশ্লিষ্টদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ সময় বলেন, “সম্প্রতি দুটি ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের দুটি প্রতিষ্ঠান ‘জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি পুরস্কার’ অর্জন করায় বাংলাদেশের মর্যাদা বিশ্ব পরিমণ্ডলে আরও উজ্জ্বল হয়েছে। ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ ‘জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি পুরস্কার’ এর ‘গ্লোবাল হাইস্কুল’ ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রাপ্তি ছাড়াও বাংলাদেশের একটি এনজিও ‘লোকাল এনভায়রনমেন্ট ডেভেলপমেন্ট এন্ড এগ্রিকালচারাল রিসার্চ সোসাইটি (LEDARS)’ দুর্যোগ-প্রবণ উপকূলীয় এলাকায় সমন্বিত পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি নিয়ে কাজ করায় ‘পানি’ ক্যাটাগরিতে আরেকটি পুরস্কার অর্জন করেছে- যা অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক।” 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিজয়ী দলের উদ্ভাবনী কাজের প্রশংসা করে বলেন, ‘এই সফলতা দেশের অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদেরও তাদের মেধার সর্বোত্তম ব্যবহার ও সৃষ্টিশীলতার মাধ্যমে বাংলাদেশের মর্যাদা আরও উজ্জ্বল করতে উৎসাহিত করবে।’

উল্লেখ্য, পুষ্টি সংরক্ষণে কাজ করায় সম্প্রতি ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ এক লাখ মার্কিন ডলারের প্রাইজমানিসহ এই পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে। গত ১৬ই জানুয়ারি আবুধাবি সাসটেইনেবিলিটি সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান বেশ কয়েকজন রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানের উপস্থিতিতে বিজয়ীর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন।