গতকাল রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত পিকেএসএফ মিলনায়তনে 'সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট, হিউম্যান ডিগনিটি অ্যান্ড চয়েস :লেসনস ফ্রম দি এনরিচ প্রোগ্রাম বাংলাদেশ' শীর্ষক গবেষণা গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফ চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার। এনরিচ বা 'সমৃদ্ধি' কর্মসূচির ওপর উপস্থাপনা করেন সংস্থার অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. জসীম উদ্দিন।

পিকেএসএফের সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচি 'সমৃদ্ধি' ২০১০ সালে শুরু হয়ে বর্তমানে দেশের ৬১টি জেলার ১৯৭টি ইউনিয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে। কর্মসূচির আওতায় পিকেএসএফের ১১১টি সহযোগী সংস্থার মাধ্যমে ১৩ লাখ ৩৬ হাজার পরিবারের ৬০ লাখের বেশি সদস্যকে বিভিন্ন ধরনের সেবা দেওয়া হচ্ছে। কর্মসূচির সম্ভাব্য কার্যকারিতা মূল্যায়ন করতে ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্সের অধ্যাপক ড. মার্টিন গ্রিলি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আসিফ এম শাহান ও ড. শুভাশিস বড়ুয়া নিরপেক্ষ গবেষণা করেন। গবেষণার ফলাফলের ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান 'স্প্রিঙ্গার ন্যাচার' গ্রন্থ প্রকাশ করেছে।

অনুষ্ঠানে ড. মসিউর রহমান বলেন, মর্যাদার ধারণা সচরাচর অর্থনীতি বা প্রবৃদ্ধি সংক্রান্ত আলোচনায় তেমন দেখা যায় না। এ গবেষণায় মানব মর্যাদাকে উন্নয়নের একটি সূচক হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে, যা অভিনব।

ড. কাজী খলীকুজ্জমান বলেন, 'সমৃদ্ধি' কর্মসূচির মূল ধারণা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের 'দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো' দর্শনের দ্বারা গভীরভাবে অনুপ্রাণিত। এ কর্মসূচির আওতায় মানুষের জীবনচক্রের প্রতিটি ধাপে প্রয়োজনীয় সেবা ও সহায়তা দেওয়া হয়, যাতে তারা তাদের বর্তমান সক্ষমতার নিরীখে বিদ্যমান সুযোগের সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে পারে এবং টেকসইভাবে নিজেদের ও সমাজের সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে পারে।