স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আর কোনো সিন্ডিকেট থাকবে না। যারা বাধা সৃষ্টি করবে তাদের বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। হাসপাতাল মানুষের সেবার জন্য। আমরা সেই সেবা নিশ্চিত করতে চাই। রংপুর এই বিভাগের সর্ববৃহৎ হাসপাতাল, সর্বোচ্চ আধুনিক যন্ত্রপাতি রয়েছে। তারপরও মানুষ সেবা পাবে না তা হতে পারে না। বৃহস্পতিবার দুপুরে নবনির্মিত ১০০ শষ্যা বিশিষ্ট রংপুর শিশু হাসপাতাল উদ্বোধনের সময় তিনি এসব বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ভালো সেবার উদ্দেশ্যে ১০০ শষ্যা বিশিষ্ট রংপুর শিশু হাসপাতাল নির্মিত হয়েছে। এখানে প্রায় ৮০ বেডে সেন্ট্রাল অক্সিজেনসহ প্রয়োজনীয় উন্নতমানের মেশিনারিজ আছে। প্রয়োজনে আরও দক্ষ জনবল নিয়োগ করা হবে। নবনির্মিত এই শিশু হাসপাতালের মাধ্যমে রংপুর বিভাগের শিশুরা আধুনিক সেবা পাবে।

এ সময় বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. এবিএম আবু হানিফ, রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. বিমল রায়, জেলা প্রশাসক ড. চিত্রলেখা নাজনীনসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, রংপুর নগরীর সাবেক সদর হাসপাতালের প্রায় দুই একর জমির মধ্যে শিশু হাসপাতালের প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মিত হয়েছে। মূল হাসপাতাল ভবনের তিনতলা পর্যন্ত প্রতি তলার আয়তন ২০ হাজার ৮৮২ দশমিক ৯৭ বর্গফুট। এছাড়া নির্মাণ করা হয়েছে তিনতলা বিশিষ্ট সুপারিনটেনডেন্ট কোয়ার্টার। ষষ্ঠ তলায় রয়েছে ডক্টরস কোয়ার্টার। নিচতলায় গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থাসহ দ্বিতীয় তলা থেকে রয়েছে ডাবল ইউনিট। ছয়তলা বিশিষ্ট স্টাফ অ্যান্ড নার্স কোয়ার্টার ও দ্বিতলবিশিষ্ট গ্যারেজ কাম ড্রাইভার কোয়ার্টার রয়েছে। এছাড়া বিদ্যুতের সাবস্টেশন স্থাপনের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে একটি ভবন। এতে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৩১ কোটি ৪৮ লাখ ৯৩ হাজার টাকা।