জাতীয় নির্বাচন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরের নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের উপপ্রধান মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল।

বাংলাদেশ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের গণতন্ত্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী। এ সপ্তাহে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র সফর করছেন। আইএমএফ ও বিশ্বব্যাংকের প্রধান বাংলাদেশের উন্নয়নে তাঁর নেতৃত্বের প্রশংসা করেছেন।

খুব শিগগির বাংলাদেশে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে রাজপথের বিরোধী দল এ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বাংলাদেশের এই পরিস্থিতিকে যুক্তরাষ্ট্র কীভাবে দেখছে– জানতে চাইলে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল বলেন, নির্বাচন নিয়ে বলতে গেলে যুক্তরাষ্ট্র অবাধ ও স্বচ্ছ নির্বাচন চায়, যাতে বাংলাদেশের জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন হয়। এটি যেহেতু বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ঘরোয়া নির্বাচন, তাই এর বাইরে আর কিছু বলার নেই।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র গত বছর সম্পর্কের ৫০ বছর উদযাপন করেছে। আমরা এ সম্পর্ককে আরও গভীর করার জন্য উন্মুখ। অনেক ক্ষেত্র রয়েছে, যেখানে আমাদের প্রচুর সহযোগিতা এবং সম্পৃক্ততার সম্ভাবনা আছে। জলবায়ু পরিবর্তন, অর্থনীতি, মানবিক সংকট মোকাবিলাসহ অনেক বিষয় রয়েছে, যেখানে দুই দেশ আরও কাজ করতে পারে।