ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরেছি: নেজাম উদ্দিন

মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরেছি: নেজাম উদ্দিন

রুমা সোনালী ব্যাংকের অপহৃত ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিনকে উদ্ধারের পর তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয় (ছবি-সংগৃহীত)

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১৯:৫২

সশস্ত্র গোষ্ঠী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) অস্ত্রধারীদের হাতে অপহরণের ৪৭ ঘণ্টা পর উদ্ধার হওয়া সোনালী ব্যাংক ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিন বলেছেন, ‌‘নিশ্চিত মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছি। আজ আমি অত্যন্ত খুশি।’

উদ্ধারের পর তাকে বৃহস্পতিবার রাতে বান্দরবান সদর র‍্যাব কার্যালয়ে রাখা হয়। আজ শুক্রবার সকালে গণমাধ্যমের সামনে আনা হয়। এ সময় তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সোনালী ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘আপনাদের সকলের প্রচেষ্টায় নিশ্চিত মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছি। আজ আমি অত্যন্ত খুশি। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাই।’

এ সময় র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈনসহ র‌্যাবের অন্যান্য কর্মকর্তা ও সাংবাদিকরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। 

নেজাম উদ্দিনের স্ত্রী মাইসুরা ইসফাতও তার পাশে ছিলেন। তিনি বলেন, প্রিয় মানুষকে হারিয়ে আবার ফিরে পাব কিনা, সেটা আশা ছিল না। সবার সহযোগিতায় তাকে ফিরে পেয়ে খুশি। সেখানে মুখে কিছুটা হাসি দেখা গেলেও নেজাম উদ্দিনের চেহারায় দেখা গেছে আতঙ্কের ছাপ। 

নেজাম উদ্দিন উদ্ধারের অভিযান পরিচালনা সম্পর্কে খন্দকার আল মঈন বলেন, রুমা ও থানচি উপজেলায় গত সোম ও মঙ্গলবার ব্যাংক ডাকাতি ও লুটপাট হয়েছে। ব্যাংক ব্যবস্থাপককে অপহরণ করে সন্ত্রাসীরা। তাকে নিরাপদে উদ্ধার করার জন্য বিভিন্ন কৌশল নেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে অপরাধীদের শনাক্ত করতে সিসিটিভি ফুটেজ ও বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। সম্মিলিত সাঁড়াশি অভিযানে কেএনএফ সন্ত্রাসীদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। লুট করে নেওয়া ১৪টি অস্ত্র উদ্ধারসহ তাদের নির্মূল করা হবে।

মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে রুমা উপজেলা প্রশাসন কমপ্লেক্স ভবনে হামলা চালিয়ে সোনালী ব্যাংক লুট ও ম্যানেজার নেজাম উদ্দীনকে অপহরণ করে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রুমা সদর থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে একটি এলাকা থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। তাঁর গায়ে ছিল একটি গেঞ্জি ও গলায় গামছা ঝোলানো। 

আরও পড়ুন

×