ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি

শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি

সিসিটিভি ফুটেজে কাঁচি হাতে ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়

সিরাজগঞ্জ ও শাহজাদপুর প্রতিনিধি

প্রকাশ: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ০৮:১৫ | আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ০৯:৩৭

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের তদন্ত কমিটি। রবীন্দ্র অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান ও নিযুক্ত তদন্তকারী কর্মকর্তা লায়লা ফেরদৌস হিমেল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে সমকালকে এ তথ্য জানান। 

তিনি বলেন, 'সেই দিনের ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ তদন্ত কমিটির হাতে এসেছে। সিসিটিভি ফুটেজে চুল কাটার দৃশ্য দেখা গেছে। এ থেকে শিক্ষার্থীদের চুল কাটার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে।’ 

তিনি আরও জানান, বৃহস্পতিবার রাতে এ বিষয়ে শেষ বৈঠকের পর আগামীকালের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হতে পারে। 

তদন্ত কমিটির প্রধান শিক্ষক লায়লা ফেরদৌস আরও বলেন, ‘বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা দেয়ায় সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে পারিনি। বুধবার রাতে শিক্ষার্থীরা অল্প সময়ের জন্য গেট খুলে দিলে তড়িঘড়ি করে ক্যাম্পাসে গিয়ে ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। শিক্ষার্থীদের কয়েকজনের কাছেও এমন ফুটেজ ছড়িয়ে গেছে বলেও আমার ধারণা।

এদিকে, ১৪ জন শিক্ষার্থীর চুল কাটার ঘটনায় মঙ্গলবার গঠিত তদন্ত কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের কর্মকর্তা আরমান শোভন, অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান বরুন চন্দ্র রায়, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান এবং সংগীত বিভাগের প্রভাষক রওশন আলম। 

চুল কেটে দেওয়ার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলনে নেমেছে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার সকাল থেকেই পরীক্ষা বর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন তারা। বুধবার থেকে ওই শিক্ষিকার স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে অনশন শুরু করে শিক্ষার্থীরা।                                                  

আরও পড়ুন

×