মতিঝিল ও খাতুনগঞ্জে সব ব্যাংকের শাখা চালু রাখার নির্দেশনা

প্রকাশ: ২৩ এপ্রিল ২০২০     আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান সাধারণ ছুটির মধ্যে ব্যাংকিং লেনদেনের আওতা বাড়াচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত সপ্তাহে শিল্পঘন এলাকার সব ব্যাংকের সব শাখা খোলা রাখার নির্দেশনা দেওয়ার পর এবার ঢাকার মতিঝিল, দিলকুশা এবং চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ ও আগ্রাবাদে অবস্থিত সব ব্যাংকের সব শাখা খোলা রাখতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে এসব এলকায় লেনদেন ও খোলা রাখার সময় বাড়ানো হয়েছে। আগামী ২৬ এপ্রিল রোববার থেকে এ নির্দেশনা কার্যকর হবে।

নতুন সময় সূচি অনুযায়ী, মতিঝিল, দিলকুশা এবং খাতুনগঞ্জ ও আগ্রাবাদে সব শাখায় সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত লেনদেন করা যাবে। আর লেনদেন পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ করার জন্য খোলা রাখতে হবে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত। অন্য এলাকায় সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত লেনদেন এবং ২টা পর্যন্ত সীমিত সংখ্যক শাখা খোলা রাখতে হচ্ছে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যে দেশের বিভিন্ন বন্দরের মাধ্যমে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রমে সুবিধা দেওয়ার জন্য পোর্ট ও কাস্টমস এলাকায় অবস্থিত ব্যাংকের শাখা বা বুথসমূহ সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার বিষয়ে গত বছরের ৫ আগস্টের নির্দেশনা বহাল আছে। পাশাপাশি চট্টগ্রাম বন্দরে সৃষ্ট পণ্য জট নিরসনে আমদানিকৃত পণ্য দ্রুত খালাসের মাধ্যমে অধিকতর সুবিধা দেওয়ার জন্য দেশের প্রধান দু’টি বাণিজ্যিক এলাকা তথা রাজধানীর মতিঝিল-দিলকুশা এবং চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ ও আগ্রাবাদে অবস্থিত শাখা খোলার রাখার বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এসব এলাকার সব শাখা থেকে দৈনিক ব্যাংকিং লেনদেনের সময় সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত পুনঃনির্ধারণ করা হল। এক্ষেত্রে লেনদেন পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য সংশ্লিষ্ট শাখা এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ প্রয়োজনে দুপুর সাড়ে ৩টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

এতে আরও বলা হয়েছে, গত ১৬ এপ্রিল জারি করা এ সংক্রান্ত সার্কুলারের অন্যান্য সকল নির্দেশনা অপরিবর্তিত থাকবে। ফলে অনলাইন সুবিধা নেই এরকম ব্যাংকের সব শাখা এবং যে কোনো ব্যাংকের শিল্পঘন এলাকার সব শাখা এবং প্রতিটি জেলায় অন্তত একটি শাখা খোলা রাখতে হবে। প্রধান দু’টি  বাণিজ্যিক এলাকা ছাড়া অন্য এলাকায় সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত গ্রাহক লেনদেন করতে পারবে। আর ব্যাংক খোলা থাকবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। তবে সব ক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।