ব্যাংকারদের উজ্জীবিত রাখার উদ্যোগ নিতে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ

প্রকাশ: ১৮ জুন ২০২০     আপডেট: ১৯ জুন ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতা কমানোর অবস্থান থেকে ব্যাংকগুলোকে ফেরাতে অবশেষে উদ্যোগী হলো বাংলাদেশ ব্যাংক। দেশের এই কঠিনসময়ে ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অধিকতর উজ্জীবিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার রাতে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, দেশের এই কঠিন পরিস্থিতিতে অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ভূমিকা অগ্রগণ্য ও অনস্বীকার্য। তাদের সক্রিয় অংশগ্রহণ ছাড়া দেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানো এবং জিডিপির কাঙ্খিত লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হবে না। এ অবস্থায় ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অধিকতর উজ্জীবিত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ঋণ প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নে যাতে অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করতে পারে সে লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সকল উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য ব্যাংকসমূহকে নির্দেশনা দেওয়া হলো।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নীতি নির্ধারক পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার রাতে সমকালকে বলেন, অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য আগামীতে সব চেয়ে বেশি দায়িত্ব নিতে হবে ব্যাংকারদের। প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন কারণে ব্যাংকারদের এখন অনেক কাজ করতে হবে। এ সময় তাদের সুযোগ সুবিধা বাড়ানো দরকার। তা না করে অনেক ব্যাংক বেতন-ভাতা কমাচ্ছে। অনেকে ছাটাই করছে। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক বেতন না কমানোর কথা ব্যাংকগুলোকে সরাসরি বলতে পারে না। যে কারণে একটু ঘুরিয়ে বলা হয়েছে। ব্যাংকগুলোর এধরনের অমানবিক আচারণ বন্ধে আরও কি করা যায় তা ভাবা হচ্ছে।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাংকগুলোর মুনাফা কমার কথা বলে এরই মধ্যে বেসরকারি খাতের এক্সিম, দ্যা সিটি, আল-আরাফাহ ইসলামী ও এবি ব্যাংক বেতন কমিয়েছে।

অবশ্য অনেক ব্যাংক এই মুহূর্তে বেতন না কমিয়ে অন্যান্য খরচ কমানোর উদ্যোগ নিয়েছে। বিশেষ করে বাড়ি ভাড়া, কর্মকর্তাদের গাড়ি ও বিনোদন খরচ, স্টেশনারি, দৈনন্দিন চা-নাস্তার খরচ, পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকের খরচসহ অন্যান্য খরচ কমিয়ে আয় সমন্বয়ের বিষয়ে ভাবছে। ভাড়া কমাতে এরই মধ্যে বাড়ি মালিকদের চিঠি দিয়েছে এনসিসি, এনআরবি কমার্শিয়ালসহ অনেক ব্যাংক।