পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র: বাংলাদেশি শ্রমিকদের ১৫ দিনের ছুটি

প্রকাশ: ২২ জুন ২০১৯      

পটুয়াখালী ও কলাপাড়া প্রতিনিধি

ফাইল ছবি

সংঘর্ষের পর পটুয়াখালীর পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য আজ রোববার থেকে ১৫ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি তিন দিনের মধ্যে তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ করা হবে বলেও জানানো হয়েছে। 

এ ছাড়া শনিবার থেকে বিদ্যুৎকেন্দ্রে স্বল্প পরিসরে কার্যক্রম শুরু করেছেন চীনা শ্রমিকরা।

পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান,  মঙ্গলবার পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বাংলাদেশি ও চীনা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও ভাংচুরে কেন্দ্রের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এসব ঠিক করতে অন্তত ১২ থেকে ১৫ দিন সময় লাগবে এবং বাংলাদেশি শ্রমিকদের পক্ষে এ কাজ করা সম্ভব নয়। চীনা শ্রমিকরাই এ কাজ করতে পারবেন। তাই এই কয়েক দিনের জন্য বাংলাদেশি শ্রমিকদের ছুটি দেওয়া হয়েছে এবং তাদের বকেয়া পরিশোধেরও সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। ক্ষতিগ্রস্ত কাজগুলো সম্পন্ন হলেই এ কেন্দ্রে আবার পুরোদমে কার্যক্রম শুরু হবে।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলায় ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেফতারকৃত ১২ বাংলাদেশি শ্রমিককে শনিবার সকালে কলাপাড়া থানায় আনা হয়। পরে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। 

এসব শ্রমিক হলেন- ইমরান হোসেন, মেহেদী হাসান জিকু, শামীম মিয়া, রাসেল আলী মণ্ডল, আতিকুর রহমান, আবদুল লতিফ মিয়া, সুজন মিয়া, সাগর শেখ, আইয়ুব আলী মণ্ডল, বেল্লাল হোসেন, ফারুক হোসেন ও মামুন গোলাম শেখ। তাদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায়। এর আগে পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশপাশের গ্রাম থেকে গ্রেফতার চার শ্রমিককে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। তাদের বাড়ি পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী এলাকায়। কলাপাড়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

এদিকে পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং এর আশপাশ এলাকায় এখনও থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। কেন্দ্রের বাইরে অবস্থানরত শ্রমিকরা গ্রেফতার আতঙ্কে এলাকা ছেড়ে চলে গেছেন এবং কেন্দ্রের ভেতরের বাংলাদেশি শ্রমিকদের কেউ কেউ দেয়াল টপকে পালিয়ে গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।