পুড়ে মরল মেয়ে, ঝুলে সৎ বাবা

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০১৯     আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯   

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি

বরগুনার পাথরঘাটায় ঘরে দেওয়া আগুনে পুড়ে মারা গেছে এক শিশু, দগ্ধ হয়েছেন তার মা আর আগুন দেওয়ায় অভিযুক্ত ব্যক্তির মৃতদেহও উদ্ধার হয়েছে।

বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের রূহিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ বলছে, জামাতা বেলালের দেওয়া আগুনে সাজেনুরের (৩০) শরীরের ৮০ ভাগ পুড়ে গেছে, তার মেয়ে সখিনা আক্তার কারিমা (১০) মারা গেছে। বেলালেরও মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে।

আহত সাজেনুরকে পাথরঘাটা হাসপাতাল থেকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

দগ্ধ সাজেনুরের বোন তাজেনুর সমকালকে জানান, তার বোন সাজেনুর বেগম চট্টোগ্রামে পোষক কারখানায় কাজ করেন। সেখানে বরগুনার তালতলী উপজেলার নিদ্রাসখিনা গ্রামের বেলালের সাথে পরিচয় হওয়ার পর তাকে দ্বিতীয় বিয়ে করে এক বছর সংসার করেন।

তিনি জানান, এর মধ্যে সাজেনুরকে তার স্বামী প্রায় দিনই নির্যাতন করতেন। বেলালের নির্যাতন সহ্য করতে না পেড়ে দুইমাস আগে সাজেনুর তার বাবার বাড়িতে আসেন। এসময় বেলাল মোবাইল ফোনে তার স্ত্রীকে জানান তার কাছে না গেলে বেলার সাজেনুরের বাবার বাড়িতে আগুন দেবেন।

সাজেনুরের বোন আরও জানান, বুধবার সাজেনুর তার বাবার বাড়িতে প্রথম স্বামীর মেয়েকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাত দেড়টার দিকে বেলাল এসে পেট্রোল দিয়ে ঘরে আগুন দেন। এ সময় ঘরের মধ্যে ঘুমানো লোকজন বাইরে বের হতে পারলেও কারিমা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

পরে বৃহস্পতিবার ১০টার দিকে পাথরঘাটা পৌরসভা সংলগ্ন কাজিবাড়ি তেলের পাম্পের পাশে একটি গাছের সাথে ঝুলানো অবস্থায় বেলালের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পাথরঘাটা থানার ওসি মো. হানিফ সিকদার এ ঘটনার, বেলালের মৃতদেহ উদ্ধারে পর বিভিন্নভাবে বিষয়টি তদন্ত চলছে। এর সাথে আরও যদি কেউ জড়িত থাকে তা হলে তাদেরকেও আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে।

বিষয় : বরগুনা