স্কুলছাত্রীর মামলায় মা ও সৎবাবা গ্রেফতার

প্রকাশ: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

ঝালকাঠি প্রতিনিধি

ঝালকাঠিতে যৌন কাজে বাধ্য করার ঘটনায় মা ও সৎবাবার বিরুদ্ধে মামলা করেছে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। নারী ও শিশু আইনে এ মামলা করা হয়।

পুলিশ মঙ্গলবার রাতে শহরে সৎবাবার বাসা থেকেে ওই ছাত্রীকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় উদ্ধার করেছে। একই সঙ্গে অভিযান চালিয়ে ছাত্রীর মা ও তার দ্বিতীয় স্বামীকে গ্রেফতার করে বুধবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়।

আদালত ছাত্রীকে খালার জিম্মায় দিয়ে মা ও সৎবাবাকে কারাগারে পাঠান।

এজাহারে ছাত্রী বলেছে, তার মায়ের পাঁচ বিয়ে হয়েছে। সে মায়ের প্রথম স্বামীর সন্তান। মায়ের দ্বিতীয় স্বামী কাজী মো. আলমগীর। দু-তিন বছর আগে মায়ের সঙ্গে আলমগীরের ছাড়াছাড়ি হয়। একপর্যায়ে মা এবং আলমগীর তাকে যৌন কাজে উৎসাহ দেয়। রাজি না হলে গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে বিভিন্ন এলাকার লোকজন এনে তাকে যৌন কাজে বাধ্য করে তারা। একপর্যায়ে সে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।

ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক গোলাম ফরহাদ বলেন, মেয়েটি যে অন্তঃসত্ত্বা তা আমরা নিশ্চিত হয়েছি।