বরগুনায় ইলিশ উৎসব বুধবার

প্রকাশ: ০১ অক্টোবর ২০১৯      

বরগুনা প্রতিনিধি

ফাইল ছবি

বাংলাদেশের ভৌগোলিক নির্দেশক বা জিআই পণ্য ইলিশের অধিক প্রচার ও প্রসারের জন্য আজ বুধবার বরগুনার সার্কিট হাউস মাঠে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইলিশ উৎসব ২০১৯। দিনব্যাপী ইলিশ উৎসবে থাকছে র‌্যালি, আলোচনা সভা, সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা, নাটক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ ইলিশের ওপর নির্মিত প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী। 

এ ছাড়াও বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে বিষখালী, বলেশ্বর ও পায়রা নদীসহ বঙ্গোপসাগরের তাজা ইলিশ সাশ্রয় মূল্যে কেনাবেচার ব্যবস্থা। মেলায় ৩০টি স্টল থেকে স্বল্পমূল্যে কেনা যাবে ৯০ আইটেমের ইলিশ সংবলিত রকমারি সুস্বাদু খাদ্যসামগ্রী।

বুধবার সকাল ১০টায় বরগুনা সার্কিট হাউস মাঠে ইলিশ উৎসবের উদ্বোধন করবেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু।

দেশের সর্বদক্ষিণের উপকূলীয় জেলা বরগুনায় প্রথমবারের মতো উৎসবটি আয়োজন করছে বরগুনা জেলা প্রশাসন ও জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরাম। এই উৎসবের মাধ্যমে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম আগামী ৯ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর ২২ দিন জেলেদের ইলিশ ধরা থেকে বিরত থাকার জন্য প্রচারণাও চালানো হবে।

ইলিশ উৎসব উপলক্ষে সোমবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে বরগুনা জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী সামনে রেখে জাতীয় মাছ বরগুনার ইলিশকে বিশ্বব্যাপী পরিচিত করে তুলতে ও ইলিশ ভাণ্ডার হিসেবে খ্যাত বরগুনায় দেশি-বিদেশি পর্যটককে ইকোট্যুরিজমে আকৃষ্ট করতে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ ও জাটকা সংরক্ষণে জনসচেতনতা তৈরি এ উৎসবের প্রধান লক্ষ্য।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, বরগুনা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির, পৌর মেয়র শাহাদাত হোসেন, জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি মনির হোসেন কামাল, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদসহ জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী, রাজনেতিক দলের নেতা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি।

মৎস্য সম্পদের উন্নয়নে বর্তমান সরকারের ব্যাপক পরিকল্পনা রয়েছে জানিয়ে ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু বলেন, আগামীতে এ আয়োজনকে জাতীয় পর্যায়ে করার পরিকল্পনা হতে পারে। সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম বলেন, আগামী ৯ থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত মা ইলিশ তাদের প্রজনন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে। বরগুনায় আয়োজিত ইলিশ উৎসবের মাধ্যমে জেলেদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, যাতে এই প্রজনন মৌসুমে জেলেরা মাছ ধরা থেকে বিরত থাকেন।

আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠান বরগুনা জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সালেহ বলেন, বরগুনা জেলার প্রধান তিনটি নদী বিষখালী, পায়রা ও বলেশ্বরের সুস্বাদু ইলিশ দেশব্যাপী বিখ্যাত। তাই জাতীয় মাছ ইলিশ ও বরগুনা জেলাকে ব্র্যান্ডিং করার লক্ষ্যেই আমাদের এই আয়োজন।

বরগুনা জেলা মৎস্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের হিসাবে বরগুনা জেলায় আহরিত ইলিশের পরিমাণ হচ্ছে ৮৯ হাজার ৫৩১ টন। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আহরণ হয়েছে ৯৫ হাজার ৯৩৮ টন।