মাত্র এক সপ্তাহ আগেই পিচঢালাই দেওয়া হয়েছে এই রাস্তায়...

প্রকাশ: ১০ জুলাই ২০২০   

রাজাপুর (ঝালকাঠি) থেকে

সড়কের উঠে যাওয়া পাথর দেখাচ্ছেন এক গ্রামবাসী -সমকাল

সড়কের উঠে যাওয়া পাথর দেখাচ্ছেন এক গ্রামবাসী -সমকাল

ঝালকাঠির রাজাপুরের গালুয়ায় ৬৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ কিলোমিটার সড়ক সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংস্কারের মাত্র এক সপ্তাহেই রাস্তার বিভিন্ন স্থানে পাথর উঠে বেহাল অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পেরে উপজেলা এলজিইডি অফিসের কর্মকর্তাদের নির্দেশে পুনরায় সঠিকভাবে ভালো মানের বিটুমিন দিয়ে ঢালাই দেওয়া হয়েছে। 

এলজিইডি সূত্র জানায়, শাহমিয়ার হাট থেকে পশ্চিম পুটিয়াখালি স্কুল পর্যন্ত ২ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারের জন্য ৬৫ লাখ টাকা বরাদ্দের কাজ বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায় ঝালকাঠি এনএম এন্টার প্রাইজ। সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের অভিযোগে জানা গেছে, বৃষ্টির মধ্যে পোড়া মবিল ও তেল দিয়ে নামমাত্র বিটুমিন দিয়ে তরিঘরি করে রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে। এতে শেষ করার এক সপ্তারের মধ্যেই বিভিন্ন স্থানে পাথর উঠে গর্তের সৃষ্টি হয়। একারণে স্থানীয় লোকজন ও জনপ্রতিনিধি বিক্ষুব্ধ হয়ে কাজ শেষে মালপত্র নিতে বাধা দেন। পরে বিষয়টি এলজিইডির কর্মকর্তাদের জানালে সংস্কার করা রাস্তার কয়েকটি স্থানে পুনরায় পিচ ও পাথর দিয়ে নতুন করে ঢালাই দেওয়া হয়। 

গালুয়া ইউনিয়নের ৪ ওয়ার্ডের মেম্বার আবুল কালাম জানান, সঠিকভাবে বিটুমিন না দিয়ে তরিঘড়ি করে সংস্কার কাজ সম্পন্ন করায় কয়েকটি স্থানের পাথর উঠে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে পুরো সড়কটির কাজ নিয়ে জনমনে ক্ষোভ বিরাজ করছে। কয়েকটি জায়গায় পুনরায় সংস্কারও করাও হয়েছে। কিন্তু পুরো সড়কটিই কয়েক দিন বা মাসের মধ্যে বেহাল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

উপজেলা এলজিইডি অফিসের সার্ভেয়ার সুমন হোসেন জানান, বৃষ্টির পানি পড়ে ২/৩টি স্থানে সড়কের পাথর উঠে গেলে রেকটিফিকেশন করে দেওয়া হয়েছে। এতে পুরো সড়কের কোন সমস্যা হবে না, কাজটি সঠিকভাবে তদারকি করা হয়েছে। 

ঝালকাঠি এনএম এন্টারপ্রাইজ’র ঠিকাদার মতিউর রহমান জানান, বৃষ্টির কারণে সংস্কার করা সড়কটির সামান্য কয়েকস্থানে সমস্যা হয়েছিলো। তা আবার ঠিক করে দেওয়া হয়েছে। এতে সড়কের কোন সমস্যা হবে না। সঠিকভাবেই সংস্কার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।