স্বরূপকাঠিতে সমিতির ৪৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ

প্রকাশ: ০২ সেপ্টেম্বর ২০২০   

স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) প্রতিনিধি

স্বরূপকাঠির ধলহার স্বনির্ভর সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতির সদস্যদের সঞ্চয়ের ৪৪ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে।

সমিতির সভাপতি সমিরণ মিস্ত্রী, সম্পাদক পার্থ মিস্ত্রী, কোষাধ্যক্ষ মৃত্যুঞ্জয় মিস্ত্রী, পরিচালক লিটন মিস্ত্রী ও কর্মচারী অমল মিস্ত্রী এ টাকা আত্মসাৎ করেন। অবশ্য এ কর্মকর্তারা একে অপরের প্রতি দোষ চাপিয়ে দায় এড়ানোর চেষ্টা করছেন। এরই মধ্যে থানায় চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগও দিয়েছেন অমল মিস্ত্রী।

সমিতির সভাপতি সমিরণ মিস্ত্রী জানান, ওসি থানায় ডেকে নেওয়ার পর তিনিসহ পার্থ মিস্ত্রী, মৃত্যুঞ্জয় মিস্ত্রী মিলে তাদের কাছে থাকা পাঁচ লাখ টাকা পুলিশের কাছে জমা দিয়েছেন। তিনি বলেন, সদস্যদের নেওয়া ঋণের টাকা বাদ দিলে তারা সর্বসাকল্যে ১০-১২ লাখ টাকা পাবেন।

টাকা আদায়কারী অমল মিস্ত্রী বলেন, ৩৫২ জন সদস্যের পাঁচ বছর মেয়াদি জমা দেওয়া সঞ্চয়ের সঙ্গে লভ্যাংশসহ প্রায় ৪২ লাখ টাকা কর্মকর্তাদের কাছে পাওনা রয়েছে। তাদের লভ্যাংশসহ টাকা ফেরত দেওয়ার আগে আরও ২১৮ জন সদস্য নতুন করে আট লাখ টাকা ডিপিএস সঞ্চয় জমা দেন। টাকা লিটন মিস্ত্রীর কাছে জমা থাকত। ওই আট লাখ টাকা নিয়ে লিটন গাঢাকা দিয়েছেন। তিনি বলেন, সমিতি থেকে কিছু সদস্যের লোন নেওয়া আছে। তাদের লোনের টাকা সমন্বয় করা হলে কর্মকর্তাদের কাছে গ্রাহকদের ৪২-৪৪ লাখ টাকা পাওনা থাকে।

নেছারাবাদ থানার ওসি (তদন্ত) শেখ আউয়াল কবির বলেন, সমিতির কয়েকজনের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা আদায় করা হয়েছে। মূল হোতা লিটনকে পাচ্ছি না। তাকে পেলে সব টাকা আদায় করা সম্ভব।