প্যাসিফিক মটরসের তেজগাঁও শোরুমে নিশানের সবশেষ চমক অল-নিউ নিশান আলমেরা উন্মোচন করা হয়। নিশান ব্র্যান্ডের ১০০০সিসি টারবো সেডান গাড়িটি দেবে মসৃণ ড্রাইভিংয়ের অভিজ্ঞতা।

অল-নিউ নিশান আলমেরার যাত্রারম্ভে প্রধান অতিথি হিসেবে মডেলটি অবমুক্ত করেন বাংলাদেশে থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত মিজ মাকাওয়াদি সুমিত্মর। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্যাসিফিক মটরসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইন্তেখাব মাহমুদ, উপ-পরিচালক ফারজানা খান, সহ-পরিচালক নাজিমুল হক প্রমুখ।

নিশান মটর এবং প্যাসিফিক মটরসের যৌথ পথচলার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস তুলে ধরেন ফারজানা খান।

অল-নিউ নিশান আলমেরা মডেলটি নিশানের ‘ইমোশনাল জিওমেট্রি’ বা ‘অনুভবের জ্যামিতি’ শীর্ষক ডিজাইন-ভাষার অধীনে পরিচালিত পুনঃকল্পনার ফসল। অল-নিউ নিশান আলমেরার প্রতিটি কোণ, প্রতিটি ভাঁজ এবং প্রতিটি বাঁক একত্রে মিলে তৈরি করে এক অনন্য বিন্যাস। যার ১ লিটার টারবো ইঞ্জিনের সর্বোচ্চ পাওয়ার আউটপুট ১০০পিএস এবং ২৪০০ থেকে ৪০০০ আরপিএমে সর্বোচ্চ টর্ক ১২ এনএম। ৬টি এয়ারব্যাগ, ৬টি স্পিকারযুক্ত ৮টি টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে, অটোমেটিক ক্লাইমেট কন্ট্রোল, স্টার্ট/স্টপ পুশ বাটনসহ ইন্টেলিজেন্ট কি এবং ৪৮২ লিটার ধারণক্ষম ট্রাঙ্ক স্পেস হচ্ছে অল-নিউ নিশান আলমেরার অনন্য বৈশিষ্ট্য।

সীমিত জায়গার মধ্যে ড্রাইভিং, পার্কিং বা এদিক-ওদিক ঘোরানোর ক্ষেত্রে পূর্ণাঙ্গ সমাধান দেবে ইন্টেলিজেন্ট মুভিং অবজেক্ট ডিটেকশান (আইএমওডি) সমৃদ্ধ ইন্টেলিজেন্ট অ্যারাউন্ড ভিউ মিরর (আইএভিএম)। ৪টি ক্যামেরায় আইএভিএম দিয়ে পাখির নজরে গাড়ির ৩৬০ ডিগ্রি ভিউটি (ভিন্ন আরও তিনটি কৌণিক অবস্থান থেকেও) অন-স্ক্রিন ডিসপ্লেতে দেখার সুযোগ পাওয়া যায়।

গাড়ির চারপাশে কোনো ধরনের বস্তুর অস্তিত্ব থাকলে তাও জানিয়ে দেবে আইএমওডি প্রযুক্তি। অল-নিউ নিশান আলমেরায় আছে নিশানের ইন্টেলিজেন্ট মোবিলিটি প্রযুক্তি। যা নিশ্চিত করবে পূর্ণ নিরাপত্তা, অভিজ্ঞতা হবে একেবারেই নতুন আর আনন্দের।