যেসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের কাছ থেকে আগাম টাকা নিয়ে পণ্য দেয়নি; সেসব প্রতিষ্ঠানকে গ্রাহকের টাকা ফেরত দিতে সময়সীমা বেঁধে দিতে যাচ্ছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে টাকা ফেরত না দিলে গেটওয়ে কোম্পানি থেকে নিয়ে গ্রাহকদের টাকা দিয়ে দেবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। বর্তমানে গেটওয়ে কোম্পানিগুলোর কাছে বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের প্রায় এক হাজার কোটি টাকা আটকে আছে।

বৃহস্পতিবার ই-কমার্স সংক্রান্ত সরকারের টেকনিক্যাল কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুটি কোম্পানির আটকে থাকা টাকা থেকে ১৩ লাখ টাকা কয়েকজন গ্রাহককে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আরও ১৬টি প্রতিষ্ঠান আটকে থাকা টাকা ফেরত দেওয়ার বিষয়ে যোগাযোগ করেছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও ই-কমার্স সেলের প্রধান এএইচএম সফিকুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানিতে কোন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের কত টাকা আটকে আছে, তার তালিকা করা হচ্ছে। শিগগিরই গণবিজ্ঞপ্তি দিয়ে কোম্পানিগুলোকে গ্রাহকের টাকা ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে বলা হবে। কোম্পানিগুলো টাকা ফেরত না দিলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে ফেরতের ব্যবস্থা করা হবে। পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানিতে যেখান থেকে টাকা এসেছে, সেখানে ফেরত দেওয়া হবে। তিনি বলেন, নির্ধারিত সময়ে যেসব প্রতিষ্ঠান গ্রাহকের টাকা ফেরত দেয়নি, তাদের তালিকা করা হচ্ছে। এই তালিকা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দেওয়া হবে, যাতে এসব কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণলায়ের হিসাবে কমপক্ষে ৩৫টি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পণ্য সরবরাহ করেনি। এমনকি টাকাও ফেরত দেয়নি। এসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের কয়েকটির মালিক আত্মগোপনে রয়েছেন। এ পর্যন্ত গ্রাহকদের পক্ষ থেকে ১৫টি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ৪১টি মামলা হয়েছে। মামলায় আসামি হয়েছেন ১১০ জন এবং গ্রেপ্তার হয়েছেন ৩৬ জন।