মাহতাব হোসনের উপন্যাস 'বেজক্যাম্প হোটেলের মধ্যরাত'

প্রকাশ: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮      

অনলাইন ডেস্ক

এলিটার বাবা মিউনিখের একটি ইউনিভার্সিটির শিক্ষক। তিনি রয়াল ইউনিভার্সিটি অব ভুটানের অধীনে কয়েকটি কলেজে গেস্ট লেকচারার হিসেবে পড়াতে এসেছেন। সঙ্গে নিয়ে এসেছেন সদ্য গ্রাজুয়েট হওয়া মেয়ে এলিটাকে। বাবা ব্যস্ত, মেয়ে এদিক-সেদিক ঘুরে বেড়ায়।

মিথেন বাংলাদেশে একটি আর্কিটেকিচারাল অর্গানাইজেশনের পাবলিক রিলেশন অফিসার। এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি হিসেবে শ্রীজ্ঞান অতীশ দীপংকরের ওপর একটি রিসার্চ পেপার নিয়ে ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব ভুটান-এর সঙ্গে একটি চুক্তি করতে যায়। বলে রাখা ভালো- অতীশ দীপংকর সে দেশে গৌতম বুদ্ধের পর অন্যতম পূজনীয়।

বাংলাদেশি তরুণ মিথেন ও জার্মান তরুণী এলিটার পরিচয় হয় ভুটানের পারো শহরের একটি হোটেলে। হোটেলের নাম বেজক্যাম্প। দু'জনের মধ্যে তৈরি হয় সখ্য।  এই হোটেলেই একটি রাতকে কেন্দ্র করে ঘটনার মোড় ঘুরে যায়। ঘটতে থাকে একের পর এক নতুন ঘটনা।  

রহস্য আর রোমাঞ্চে ঘেরা সেই ঘটনা নিয়ে তরুণ লেখক মাহতাব হোসেনের নতুন উপন্যাস- 'বেজক্যাম্প হোটেলের মধ্যরাত'। সামান্য থ্রিল মেশানো এই রোমান্টিক উপন্যাস বইমেলায় এনেছে দেশ পাবলিকেশন, স্টল নম্বর-৪৫২-৪৫৩।

একই পাবলিকেশন থেকে গেল বছর বই মেলায় তার দ্বিতীর গল্পের বই 'ঈশ্বরদী বাইপাস' প্রকাশ হয়। ২০১৬ সালে মাহতাব হোসেনের প্রথম গল্পের বই 'তনিমার সুইসাইড নোট' প্রকাশের পর বেশ আলোচনায় আসে। পরে এই গল্প নিয়ে টেলিভিশন নাটক নির্মিত ও প্রচারিত হয়।